হাঙ্গেরিতে ৩ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর ‘এক্সিলেন্স এওয়ার্ড’ অর্জন

0

হাঙ্গেরিতে প্রথমবারের মতো প্রবর্তিত ‘এক্সিলেন্স এওয়ার্ড’ অর্জন করেছে ৩ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী। তারা হলেন স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী আমিনুল ইসলাম সাদি এবং স্নাতক শিক্ষার্থী সাদন মোহাম্মাদ ও সামীন ইয়াসির।

পরীক্ষায় ভাল ফলাফলের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক পরিবেশ সৃষ্টিতে ভূমিকার স্বীকৃতিস্বরূপ তাদের এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে । ৩ শিক্ষার্থীই ‘স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম’ বৃত্তি নিয়ে দেশটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়ন করছে।

গত ২৬ অক্টোবর রাজধানী বুদাপেস্টে দেশটির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘এক্সিলেন্স এওয়ার্ড’ তুলে দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম ব্যবস্থাপনা কমিটির সচিব ড. ওরসোল্যো প্যাকসে বলেন, হাঙ্গেরি সরকার বুঝতে পেরেছে যে বৈশ্বিক পরিবর্তনের হাত ধরে আমাদেরকেও সারা বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। সে লক্ষ্যে সরকার বিশ্বের মেধাবীদের আকৃষ্ট করতে কাজ করে যাচ্ছে।

এক্সিলেন্স এওয়ার্ড শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, “আপনারা হচ্ছেন ৫০,০০০ আবেদনকারী থেকে নির্বাচিত অংশ যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে মানসম্পন্ন পড়াশোনা এবং আমাদের কার্যক্রমে সাহায্য করে যাচ্ছেন। আপনাদের অংশগ্রহণের স্বীকৃতিস্বরূপ এক্সিলেন্স এওয়ার্ড প্রদান করা হচ্ছে।

ঢাকার রাজউক উত্তর মডেল কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক শেষ করে ২০২০ সনে হাঙ্গেরি সরকারের বৃত্তি পেয়ে বুদাপেস্ট আছেন সাদন মোহাম্মাদ। হাঙ্গেরিয়ান ইউনিভার্সিটি অব এগ্রিকালচারাল এন্ড লাইফ সায়েন্সে স্নাতক শুরু করেন। স্বল্পভাষী মিশুক সাদন এতো মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সাথে মেন্টর হিসেবে কাজ শুরু করেছেন।

এক্সিলেন্স এওয়ার্ড প্রাপ্তির অনুভূতি সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, “এই পুরষ্কার অর্জনের পেছনে বড় কারণ হচ্ছে আমার সিজিপিএ ভাল। পাশাপাশি আমি স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকামের একজন মেন্টর। দুইটি এগিয়ে থাকা এবং সর্বোপরি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক কমিউনিটি বিস্তারে আমি সাহায্য করেছি”।

সামীন ইয়াসির স্নাতক তৃতীয় বর্ষে পড়াশোনা করছেন দানিউবের তীরে বুদাপেস্ট ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ইকোনোমিকসে। সদা পড়াশোনায় ব্যস্ত সামীন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি পরিচিত নাম। ভাল ফলাফল তার এক্সিলেন্স এওয়ার্ড প্রাপ্তিতে বড় ভূমিকা রেখেছে বলেছে প্রতিবেদককে সে জানিয়েছে। সামীন তার অর্জন সম্পর্কে জানিয়েছেন যে, এই পুরষ্কার তার শিক্ষা জীবনের জন্য এক অনন্য কৃতিত্ব।

আমিনুল ইসলাম সাদি সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক শেষ করে ২০২০ সনে স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম বৃত্তি পেয়ে হাঙ্গেরিতে পাড়ি জমান। হাঙ্গেরির ডেব্রেসেন শহরের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই বছর স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন খাদ্য নিরাপত্তা ও গুনগত মান বিষয়ে। এক্সিলেন্স এওয়ার্ড পুরষ্কার প্রাপ্তিতে সাদি সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

২০১৭ সাল থেকে দ্বিপক্ষীয় আওতায় হাঙ্গেরি সরকার বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতি বছর ১০০টিরও বেশি ‘স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম’ বৃত্তি দিয়ে আসছে।

সর্বশেষ চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে অনার্স, মাস্টার্স এবং পিএইচডি কোর্সের জন্য প্রায় ১০০ জন শিক্ষার্থী এখন হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টসহ বিভিন্ন শহরের বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়ন করছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন