মঙ্গল গ্রহে নাসার হেলিকপ্টারের নতুন রেকর্ড

0

মঙ্গল গ্রহের মাটিতে দেড় বছর পার করার পর নতুন রেকর্ড গড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার পাঠানো হেলিকপ্টার ইনজেনুইটি। ১ কেজি ৮০০ গ্রাম ওজনের এই হেলিকপ্টার ৩ ডিসেম্বর ৩৫তম বারের মতো মঙ্গলের আকাশে ওড়ে। এ সময় এটি ৪৬ ফুট (১৪ মিটার) উঁচুতে ওড়ার নতুন রেকর্ড গড়ে। খবর সিএনএনের।

নাসার পক্ষ থেকে বলা হয়, ইনজেনুইটি হেলিকপ্টারটি ৩৫তম বার ওড়ার ক্ষেত্রে ৫২ সেকেন্ড শূন্যে ভেসে ছিল এবং এ সময় ৫০ মিটার দূরত্ব অতিক্রম করে। এর আগে গত ২২ নভেম্বর হেলিকপ্টারটি সর্বোচ্চ ১৮ সেকেন্ড পর্যন্ত আকাশে উড়েছিল। গবেষকেরা এরপর থেকে হেলিকপ্টারটির আয়ুষ্কাল আরও বৃদ্ধি করতে এর সফটওয়্যার হালনাগাদ করেন। এরপর তাঁরা পরীক্ষামূলকভাবে হেলিকপ্টারটি দীর্ঘ সময় ওড়ান।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, হেলিকপ্টারটির সফটওয়্যার হালনাগাদ করার ফলে এখন মঙ্গলের পাথুরে পৃষ্ঠের ওপর নামার সময় সংঘর্ষ এড়াতে পারবে।

Travelion – Mobile

বিজ্ঞানীরা ইনজেনুইটি হেলিকপ্টার নকশার সময় ভেবেছিলেন, এটা মঙ্গলের মাটিতে তাদের প্রযুক্তি পরীক্ষার একটি অংশ। শুরুতে মঙ্গলের মাটিতে পাঁচবার এ হেলিকপ্টার ওড়ানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে পারসেভারেন্স নামের রোবট যানের সঙ্গী হিসেবে ইনজেনুইটিকে মঙ্গলের পাঠানোর পর থেকে এটি চমক দিয়ে যাচ্ছে। পারসেভারেন্সের সঙ্গী হিসেবে আশপাশে উড়ে বিপজ্জনক কিছু আছে কি না, তা পর্যবেক্ষণ করছে এবং ভবিষ্যতে কোনদিকে যাওয়া যাবে তা ঠিক করছে।

নাসা ব্লগে ইনজেনুইটির প্রধান প্রকৌশলী বব বালারাম লিখেছেন, ইনজেনুইটির সাফল্যের ফলে নাসা এ দশকের শেষের দিকে মঙ্গল গ্রহের নমুনা পুনরুদ্ধারে আরও দুটি এ ধরনের হেলিকপ্টার সেখানে পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে। এ দশকের শেষ দিকে মার্স স্যাম্পল রিট্রাইভাল ল্যান্ডার নামের রোবটযান মঙ্গলে পাঠানো হবে। নমুনা উদ্ধারে ব্যবহৃত এ ধরনের হেলিকপ্টারে সাধারণ পায়ের পরিবর্তে থাকবে চাকা। এ ছাড়া এতে থাকবে ছোট বাহু। মঙ্গলগ্রহ থেকে নমুনা সংগ্রহের কাজে এ বাহু ব্যবহার করা হবে। এর বাইরে পাঁচ কেজি নমুনা সংগ্রহ করতে সক্ষম এমন হেলিকপ্টার নিয়েও পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

মঙ্গল গ্রহে বর্তমানে পারসেভারেন্স রোবটটি নমুনা সংগ্রহের কাজ করে যাচ্ছে। ২ ও ৬ ডিসেম্বর মঙ্গলগ্রহের বালিয়াড়ির দুটি নমুনা সংগ্রহ করেছে এ রোবট। এ মাসের শেষ দিকে একটি স্থানে এসব নমুনা রেখে দেবে রোবটটি। ২০৩০ সালের দিকে ভবিষ্যতের মঙ্গল মিশনে এসব নমুনা পৃথিবীতে আনার পরিকল্পনা রয়েছে বিজ্ঞানীদের।

al sohar – mobile

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন