আমিরাতে অভাবী বাসিন্দাদের জন্য বিনামূল্যে তাজা রুটির ব্যবস্থা

0

মহামারির শুরুতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস-প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী এবং দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম জোর দিয়ে বলেছিলেন, “আমিরাতে, কেউ ক্ষুধার্ত পেটে ঘুমাবে না”।

তাঁর এই দৃষ্টিভঙ্গি-উপলব্ধির বাস্তব রূপায়ন ‘সবার জন্য রুটি’ ডিজিটাল কর্মসূচি, যার লক্ষ্য হচ্ছে সুবিধাবঞ্চিত পরিবার এবং কর্মীদের দিনের বিভিন্ন সময়ে বিনামূল্যে রুটি সরবরাহ করে সহায়তা করা। আউটলেটে স্থাপিত ভেন্ডিং মেশিন থেকে অভাবী বাসিন্দারা বিশেষ করে প্রবাসী কর্মীরা পাবেন বিনামূল্যে তাজা ও গরম রুটি।

আওকাফ অ্যান্ড মাইনরস অ্যাফেয়ার্স ফাউন্ডেশনের (এএমএএফ) অধীনে মোহাম্মদ বিন রশিদ গ্লোবাল সেন্টার ফর এনডাউমেন্ট কনসালটেন্সি (এমবিআরজিসিইসি) উদ্যোগে শনিবার দুবাইয়ের শুরু হয়েছে এই মানবিক কার্যক্রম। শুরুটা দুবাই দিয়ে হলেও ধারাবাহিকবাবে সকল রাজ্য ‘সবার জন্য রুটি’ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

Travelion – Mobile

দুবাই শহরের আল মিজহার, আল ওয়ারকা, মিরদিফ, নাদ আলশেবা, নাদ আল হামার, আল কুজ এবং আল বাদা’আ শাখাসহ বেশ কয়েকটি আসওয়াক আউটলেটের দরজার ডানদিকে বসানো হয়েছে ভেন্ডিং মেশিন।

সহজে ব্যবহারযোগ্য রুটি ভেন্ডিং মেশিন আরবি রুটি এবং ফিঙ্গার রোলের মধ্যে বিকল্প বেছে নিতে পারবে। একবার নির্বাচিত হলে, তাদের রুটির প্রয়োজন কিনা তা জিজ্ঞাসা করে স্ক্রিনে একটি পপ আপ প্রদর্শিত হবে। ‘ক্লিক টু অর্ডার’ নির্বাচন করার পরে, মেশিনটি গরম রুটি প্রস্তুত করা শুরু করে, যা প্রায় এক মিনিটের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

দুবাই শহরজুড়ে বসানো ভেন্ডিং মেশিনের মাধ্যমে অভাবী বাসিন্দাদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা হচ্ছে তাজা রুটি
দুবাই শহরজুড়ে বসানো ভেন্ডিং মেশিনের মাধ্যমে অভাবী বাসিন্দাদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা হচ্ছে তাজা রুটি

শনিবার আল কুজ ২-এর একটি আসওয়াক আউটলেট পরিদর্শন করার সময় ভেন্ডিং মেশিনে অপেক্ষারত এক ব্যক্তি বলেছিলেন “এই ব্যবস্থা, আমাকে রাতের খাবারের রুটি কেনার জন্য যে অর্থ আলাদা করে রাখতে হয়, তা এখন সঞ্চয় করতে সাহায্য করবে” ।

আরও পড়তে পারেন : আমিরাতে এসএসসি পরীক্ষায় ৮৬ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

একজন নিরাপত্তা প্রহরী বলেন, “আমরা অনেক লোককে মেশিন ব্যবহার করতে দেখেছি। যাতের বেশিরভাগই শ্রমিক ছিল যারা এলাকায় কাজ করে। কেউ কেউ ডেলিভারি রাইডার এবং বাইরের ছিলেন।”

আসওয়াক কোম্পানিগুলি দিনে দুবার মেশিনগুলি রিফিল করার দায়িত্বে রয়েছে-একবার সকালে এবং একবার সন্ধ্যায়। “সন্ধ্যার সময়, আমরা এমন লোকদের পাই যারা কাজ থেকে বাড়ি ফিরছেন,” বলেছেন নিরাপত্তারক্ষী।

এমবিআরজিসিইসি-এর পরিচালক জয়নাব জুমা আল তামিমি বলেন, “এই উদ্যোগের লক্ষ্য মানবিক কাজে টেকসইতার নীতি বাড়ানো এবং সমাজে সামাজিক সংহতি ছড়িয়ে দেওয়া।

তিনি নিশ্চিত করেছেন যে ভেন্ডিং মেশিনের সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। “৬ মাস পরে দুবাই এবং অন্যান্য আমিরাতে একটি সম্প্রসারণ পরিকল্পনা রয়েছে।”

আরও পড়তে পারেন : নিউইয়র্কে বাংলাদেশিসহ ১১’শ শিক্ষার্থীকে ‘স্কুল সাপ্লাইজ’ প্রদান

বিত্তবান কিংবা সাধারণ জনগণও এই মহৎ উদ্যোগের সহায়তায় অনুদান দিতে পারবেন। এজন্য দুটি দেওয়ার বিকল্প রয়েছে-হয় মেশিনে বা এসএমএসের মাধ্যমে।

মেশিনে, যারা অবদান রাখতে ইচ্ছুক তারা দান বোতামে ক্লিক করতে পারেন এবং ১০ দিরহাম থেকে থেকে শুরু করে পরিমাণ নির্বাচন করতে পারেন। তারপরে তারা পেমেন্ট মেশিনে তাদের ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড ট্যাপ করবেন ।

যারা অ্যাপের মাধ্যমে অবদান রাখতে চান বা du এবং Etisalat এর মাধ্যমে এসএমএস পাঠাতে চান তারা নিম্নলিখিত নম্বরে একটি SMS পাঠাতে পারেন:

১০ দিরহাম দান করতে 3656
৫০ দিরহাম দান করতে 3658
১০০ দিরহাম অনুদানের জন্য 3659
৫০০ দিরহাম অনুদানের জন্য 3679

সূত্র : খালিজ টাইমস

আকাশযাত্রার ফেসবুক পেইজ যুক্ত হতে চাইলে এখানে ক্লিক করার অনুরোধ

al sohar – mobile

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন