সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশিদের জন্য এনবিএল মানি ট্রান্সফারের হোম সার্ভিস

0

সিঙ্গাপুরে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রবাসী বাংলাদেশি হোম সার্ভিসের মাধ্যমে সেবা দিয়ে বেশ সুনাম অর্জন করেছে এনবিএল মানি ট্রান্সফার।

বাংলদেশের ন্যাশনাল ব্যাংকের সিঙ্গাপুরের অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠানটি প্রবাসীদের আবাসস্থলে হাজির হয়ে রেমিট্যান্স প্রেরণের সেবা দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এ ছাড়া তারা ১২ টি ব্যাংক এবং এনজিও রেডি ক্যাশের মাধ্যমে সেবা দিচ্ছে।

করোনাভাইরাস প্রাদূর্ভাব প্রতিরোধে সিঙ্গাপুর সরকারের আরোপিত বিধিনিষেধের কারনে প্রায় দু মাস একটানা আইসোলেশন বা কোয়ারান্টাইনে আছেন সিঙ্গাপুরপ্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীরা। তাই তাদের পক্ষে মানি এক্সচেঞ্জে গিয়ে দেশে টাকা পাঠানো সম্ভব হচ্ছিল না।

এই বাস্তবতায় সিঙ্গাপুরের জনশক্তি মন্ত্রণালয় (MOM) এবং মুদ্রা কর্তৃপক্ষ, সিঙ্গাপুর (MAS) এর যৌথ উদ্যোগে প্রবাসীদের দূর্ভোগ নিরসনে হোম মাধ্যমে দেশে পাঠানোর এই উদ্যোগ নেয় এক্সচেঞ্জ হাউজটি।

ইতােমধ্যেই সিঙ্গাপুরের শিল্পাঞ্চলখ্যাত সাউথ তুয়াসসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের ডরমেটরিতে এক্সচেঞ্জের প্রতিনিধিরা স্বশরীরে হাজির হয়ে সেবা প্রদান করছেন। এ পর্যন্ত প্রায় ১হাজার ৫০০ জনকে এই সুবিধা দেওয়া হয়েছে।

এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সিঙ্গাুপুরের সকল ডরমেটরিতেও বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য এই সেবা বিস্তৃত করা হবে এবং করোনাকাল শেষেও এই ব্যবস্থা অব্যাহত রাখার পরিকল্পনা আছে।

করোনাকালে বাংলাদেশি রেমিট্যান্সযোদ্ধাদের সেবা নিশ্চিতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে জানিয়ে এনবিএল মানি ট্রান্সফারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ( সিইও) মুহাম্মদ জাকারিয়া হাবিব বলেন, স্বাস্থ্য ঝুঁকির চ্যালেঞ্জ নিয়েই আমাদের প্রতিনিধিরা প্রবাসীদের দোরগোড়ায় হাজির হয়ে দেশে রেমিট্যান্স পাঠনোর সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

সহকারী অপারেশন ম্যানেজার মো. আক্তরুজ্জামান জানিয়েছেন, প্রবাসী রেমিট্যান্স দেশে টাকা পাঠানো সহজতর করতে নতুন নতুন বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে এনবিএল। একদিনের মধ্যেই দেশে প্রবাসীর পরিবারের একাউন্টে টাকা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। আর রেডি ক্যাশ সেবায় মাত্র ৫ মিনিটেই টাকা স্থান্তর করা হচ্ছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...