বাহরাইনে বাংলাদেশিদের মর্যাদা বাড়াতে ইয়ুথ ক্লাবের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

0

প্রায় দুই লক্ষ বাংলাদেশির বসবাস বাহরাইনে। বিভিন্ন সময়ে ভিন্ন ভিন্ন ঘটনার কারনে সংবাদের শিরোনামে আসে বাংলাদেশের নাম যার ৯০% নেতিবাচক সংবাদ। গুটি কয়েক খারাপ মানুষের কিছু খারাপ ঘটনার কারণে বারবার আমাদের সকল বাংলাদেশিদের বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়।

গত কিছুদিন আগেও একটি ঘটনা স্যোশাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে বাহরাইনের সংসদ পর্যন্ত গড়ায় এবং তাতেও সমগ্র বাংলাদেশিদের সম্মানে আঘাত হানে এবং এদেশের নাগরিকদের সামনে অনেক ছোট হতে হয় আমাদের।

বাহরাইনের সরকার এমন মানবিক একটি সরকার যা বিশ্বে খুবি বিরল। সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিজের দেশের মানুষের চাপ সামাল দিতে না পেরে যেখানে অন্য দেশের নাগরিকদের তাদের নিজ দেশে ফিরত যাওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে সেখানে বাহরাইন সরকার তার দেশের জনগনের পাশাপাশি অন্যান্য দেশের নাগরিকদের বিভিন্ন সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে এদেশে আগলে রেখেছেন, যা পৃথিবীর কোন দেশ এমন দৃষ্টান্ত দেখাতে পারেনি।

মহামারির এই সময়ে যেই দেশ আমাদের জন্য এত কিছু করছে সেখানে আমরা কিভাবে এদেশে এরকম একটি খারাপ ঘটনা কিভাবে ঘটাতে পারি?

সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনাটির কারনে এখানে বাংলাদেশিদের একটি ইমেজ সংকট হয়েছিল, আর তখনি আমরা আমাদের ক্লাবের পক্ষ থেকে একটি উদ্যোগ গ্রহন করি যে এই সংকট থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে আমাদের কিছু করা প্রয়োজন যা আমাদের প্রতি যে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে তা থেকে অন্তত কিছুটা লাঘব করবে। আর সেই সূত্র ধরে আমরা ঠিক করি যে মহামারীর এই ক্রান্তিলগ্নে নিজের জীবন বাজি রেখে যারা সকলকে সুস্থ করে তুলছেন সেইসব জাতীয় বীরদের (ডাক্তার) বাংলাদেশ ইয়ুথ ক্লাবের পক্ষ থেকে সম্মান জানানো হবে।

সেই লক্ষ্যে আমরা বিডিএফ রয়েল মেডিকেল সার্ভিসের পরিচালক মেজর জেনারেল প্রফেসর শেখ খালিদ বিন আলি আল খলিফার সঙ্গে এবং সিতরা কোয়ারেন্টিন সেন্টারের প্রধান কর্নেল ডক্টর নায়েফ এ লরি এর সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং তাদের সম্মাননা প্রদানের বিষয়টি উপস্থাপন করি, যা তারা সাদরে গ্রহন করেন এবং সাক্ষাতের সময়সুচি ধার্য করেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) বাহরাইনের বাংলাদেশ ইয়ুথ ক্লাবের প্রেসিডেন্ট আল আমিন মুহাম্মদ এবং জয়েন সেক্রেটারি নাজমুস সাদাত ফয়সাল ক্লাবের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত হন। তাদের অভ্যর্থনা জানান বিডিএফ রয়েল মেডিকেল সার্ভিসের পাবলিক রিলেশান ও মার্কেটিংয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শেয়খা ডানা খলিফা আলি আল খলিফা এবং সিতরা কোয়ারেন্টিন সেন্টারের ভলেন্টিয়ার সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ খান।

কর্ণেল ডক্টর নায়েফের সাথে অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ আলোচনায় বাহরাইন সরকারের যেকোন প্রয়োজনে বাংলাদেশ ইয়ুথ ক্লাবের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহয়োগিতার অভিপ্রায় ব্যাক্ত করা হয় এবং বর্তমান এই সময়ে বাংলাদেশিদের জন্য নেয়া বিভিন্ন কর্মসূচির ভূয়সী প্রসংসা করেন তিনি। ক্লাবের পক্ষ থেকে এমন একটি উদ্যোগের মাধ্যমে সম্মাননা প্রদর্শনে তারা অত্যন্ত খুশি এবং প্রশংসা করেন।
মেজর জেনারেল শেখ খালিদ মিটিংয়ে ব্যস্ততার কারনে উপস্থিত হতে পারেনি বলে তার প্রতিনিধির মাধ্যমে তিনি দু:খ প্রকাশ করেছেন এবং পরবর্তিতে আরেক সময় তিনি দেখা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

সবশেষে বাহরাইন সরকারের প্রতি বাংলাদেশিদের সম্মান, ভালবাসা ও সংহতি প্রকাশের মাধ্যমে তাদের সম্মাননা ও স্মৃতিস্বরুপ ক্রেস্ট হস্তান্তর করা হয় । তাদের দুজনার পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহন করেন সিতরা কোয়ারেন্টাইনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ফাহাদ আল খাবি।

আমাদের এই কাজটির মুল উদ্দেশ্য হলো বাহরাইনে বাংলাদেশিদের হারানো ইমেজকে পূনরায় ফিরিয়ে আনার একটি প্রচেষ্টা । আর এই প্রচেষ্টা তখনি সফল হবে যখন সকল বাংলাদেশিরা যার যার অবস্থানে থেকে দেশের জন্য কিছু করে যাবে।

আমরা আপনাদের সকলের প্রতি অনুরোধ করবো ইন্সটাগ্রামের https://instagram.com/bdf_hospital?igshid=14lu5jre9g3so লিংকটিতে গিয়ে বাহরাইন সরকারের প্রতি সম্মান, ভালবাসা, কৃতজ্ঞতা ও সংহতি প্রকাশ করে যারা ভাল ইংলিশ জানেন তারা ইংলিশে কিছু পজিটিভ কমেন্টস করুন। আপনাদের পজিটিভ কমেন্টের মাধ্যমে বাহরাইন সরকারের নজরে আসুক আমরা বাংলাদেশিরা সবসময় বাহরাইন সরকারের সাথে আছি এবং থাকবো।

যারা খারাপ কাজ করে তাদের সংখ্যাটা খুবি নগন্য ভাল মানুষের সংখ্যাটাই বেশি। আমাদের এই উদ্যোগটি যদি আপনাদের ভাল লেগে থাকে তাহলে এই একটা কাজ করে আমাদের পাশে থাকুন।

লেখক : বাহরাইনপ্রবাসী বাংলাদেশি সংগঠক

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।