পাকিস্তানে ১০৭ আরোহীসহ উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত

0

অবতরণ করার ঠিক এক মিনিট আগে যাত্রী ও বিমানসদস্যদের নিয়েই করাচি বিমানবন্দরের কাছে ভেঙে পড়ল লাহোর থেকে রওনা হওয়া পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের একটি A320 উড়োজাহাজ (নিবন্ধিত এপি-বিএলডি)।

পাকিস্তানের গণমাধ্যম জানিয়েছে, উড়োজাহাজটিতে প্রায় ১০৭ জন যাত্রী ছিলেন। এখনও পর্যন্ত কোনও যাত্রীর বেঁচে যাওয়ার খবর মেলেনি।

এক ঘন্টা এবং ৪৫ মিনিটের ফ্লাইটটি স্থানীয় সময় দুপুর ১ টা ৩০ মিনিটে লাহোর থেকে করাচি উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে।

বিমানটি আবাসিক অঞ্চলে ভেঙে পড়েছে। করাচি বিমানবন্দর থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে মালিরের মডেল কলোনির কাছে জিন্নাহ গার্ডেন এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। প্রচুর ঘনবসতি থাকায় এবং সরু গলির কারণে উদ্ধারকার্যে বাধা পড়ছে।

পাকিস্তানের গণমাধ্যম প্রকাশিত ভিজ্যুয়ালে দেখানো হয়েছে, ধ্বংসস্তূপসহ ও ওই এলাকার বেশ কয়েকটি বাড়িতে আগুন লেগেছে। আকাশে ঘন কালো ধোঁয়াও দেখা গিয়েছে। বিজনেস রেকর্ডার জানিয়েছে যে, দুর্ঘটনায় পাঁচটি বাড়ি এবং কয়েকটি গাড়ি ধ্বংস হয়েছে।


পাকিস্তান গণমাধ্যম জানিয়েছে যে ত্রাণ ও উদ্ধারকাজে সহায়তা করার জন্য পাক আর্মি কুইক রিঅ্যাকশন ফোর্স এবং পাকিস্তান রেঞ্জার্স দুর্ঘটনাস্থলে রয়েছে।

“বিমানটি করাচিতে ভেঙে পড়েছে। আমরা যাত্রীর সংখ্যা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি তবে প্রাথমিকভাবে এটিতে ৯৯ জন যাত্রী এবং আট জন ক্রু সদস্য ছিলেন,” পাকিস্তানের বিমান কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র আবদুল সাত্তার খোখার জানিয়েছেন সংবাদ সংস্থা এএফপিকে।


পাকিস্তান বাণিজ্যিক উড়ান পুনরায় চালু করার অনুমতি দেওয়ার দিন কয়েক পরেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

করাচি এবং লাহোরের মাঝে দূরত্ব প্রায় ১০২০ কিলোমিটার এবং এই দূরত্ব পাড়ি দিতে বিমানের প্রায় সাড়ে সাত ঘণ্টা সময় লাগে।

বিধবস্ত এপি-বিএলডি হল ১৫ বছরের পুরানো এয়ারবাস A320-200 উড়োজহাজটি, যেটি GECAS থেকে ২০১৪ সালের অক্টোবর থেকে ইজারা পিআইএ দেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০০৪ সালে তৈরি হওয়ার পরে এই উড়োজাহাজটি চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্সের হয়ে ফ্লাইট করেছে।


২০১৬ সালে, পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের একটি বিমান দুর্গম উত্তরাঞ্চল থেকে ইসলামাবাদে বিমান চালনার সময় দু’টি টার্বোপ্রপ ইঞ্জিন খারাপ হয়ে গেলে বিস্ফোরণ ঘটে, ৪০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছিলেন ওই দুর্ঘটনায়।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...