করোনার লকডাউনে মাঝ আকাশে বিয়ে!

0

করোনা প্রাদূর্ভাব মারাত্মক বাড়ায় লকডাউনসহ নানা বিধিনিষেধ থাকায় এক যুগল আকাশে উড়ে উড়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। পুরো একটি উড়োজাহাজ ভাড়া করে পরিবার–পরিজন ও আত্মীয়স্বজন নিয়ে মধ্যাকাশেই মহা ধুমধামে মালা বদল করেন তাঁরা। কিন্তু ফ্লাইটের মধ্যেও করোনার স্বাস্থ্যবিধি না মানায় শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন তারা।

এ ঘটনাটি ঘটেছে গত রোববার ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারের আরোপ করা লকডাউনের মধ্যেই বিয়ে করতে তামিলনাড়ুর মাদুরাই শহরের ওই তরুণ–তরুণী স্পাইস জেটের একটি উড়োজাহাজ ভাড়া করেন।

মাদুরাই থেকে বেঙ্গালুরু পর্যন্ত যাওয়ার পথে মাঝ আকাশেই বিয়ের কাজ সারেন তাঁরা। বোয়িং–৭৩৭ মডেলের উড়োজাহাজটিতে বর–কনে ছাড়াও তাঁদের পরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠজনেরা উপস্থিত ছিলেন। ওই বিয়ের ছবি ও ভিডিও প্রকাশের পর তা ইন্টারনেটে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

বিয়ের পর প্রচুর ছবি আর ভিডিও নিজেরাই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন ওই পাত্র ও পাত্রীপক্ষ। ভিডিওতে দেখা গেছে, বউয়ের গলায় মঙ্গলসূত্র বেঁধে দিচ্ছেন বর। তার আশেপাশে গোটা বিমান জুড়ে ভিড় করে রয়েছেন বহু মানুষ। সকলেই তাঁদের আত্মীয়স্বজন। লোকজনে একেবারে ঠাসা উড়োজাহাজ। অভিনব এই ঘটনার সাক্ষী থাকতে পেরে খুশি সকলেই। দূরত্ববিধি তো দূর, মাস্ক বলে কিছুর নামটাও যেন শোনেননি কেউ। সকলেই বেজায় ব্যস্ত ছবি তোলার জন্য।

মাঝ আকাশে এমন ধরনের ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়েছেন ভারতের বিমান কর্তৃপক্ষ। সিভিল অ্যাভিয়েশনের ডিরেক্টরেট জেনারেল (ডিজিসিএ) স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।
ডিজিসিএর কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ভারতের বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের খবরে বলা হয়েছে, ওই ঘটনায় এয়ারলাইনস স্পাইস জেট ও মাদুরাই বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে পুরো প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে। ওই ফ্লাইটের ক্রুকে দায়িত্বের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

স্পাইস জেটের মুখপাত্র বলেছেন, বিবাহ–পরবর্তী অনুষ্ঠান আয়োজনের কথা বলে ২৩ মের (রোববার) জন্য উড়োজাহাজটি ভাড়া করা হয়। উড়োজাহাজে ওঠার পর যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়টি অবগত করা হয়। এ ছাড়া উড়াল দেওয়ার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে যাত্রীদের বারবার অনুরোধ করা হলেও তাঁরা তা মানেননি।

এই ঘটনার জেরে অপসারিত করা হয়েছে স্পাইসজেটের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন