আকাশপথ মুক্ত হলে আবার উড়বে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ

0

করোনা পরিস্থিতি উন্নতি সাপেক্ষে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ওঠে যাওয়ার পর আবার ফ্লাইট অপারেশন শুরু করবে রিজেন্ট এয়ারওয়েজে-এমন প্র্রতিশ্রুতির ঘোষণা দিয়ে ফ্লাইট অপারেশন সাময়িক স্থগিতের ব্যাখ্যা দিল দেশের বেসরকারি খাতের অন্যতম বিমানসংস্থাটি।

সোমবার (২৩ মার্চ) জারি করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্বব্যাপী কোভিড ১৯ (করোনাভাইরাস) প্রাদুর্ভাবের চলমান সংকটের কথা বিবেচনা করে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ রোববার (২২ মার্চ) থেকে সব ধরনের ফ্লাইট অপারেশন (আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ) সাময়িকভাবে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে।

রিজেন্ট এয়ারওয়েজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী করোনার বিস্তার যতই ছড়িয়েছে ততই বিভিন্ন দেশ ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে বাধ্য হয়েছে। দেশ সমুহে প্রবেশাধিকারে কড়াকড়ি হওয়ায় বিভিন্ন বিমান সংস্থা অনির্দিষ্টকালের জন্য তাদের সব কার্যক্রম স্থগিত করে, যা বিশ্বব্যাপী এভিয়েশন শিল্প এক অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন করে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের একটি বিশ্বস্ত এবং স্বনামধন্য বেসরকারি এয়ারলাইন্স হিসেবে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ শেষ পর্যন্ত ফ্লাইট পরিচালনার প্রচেষ্টা অব্যাহত ছিলো, যদিও তা বাকি একমাত্র আন্তর্জাতিক রুট সিঙ্গাপুর কর্তৃক আরোপিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে। দেশের অভ্যন্তরে সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় পর্যটন রুট কক্সবাজারেও ফ্লাইট পরিচালনার চেষ্টা অব্যাহত ছিলো। কিন্তু তা করোনা প্রাদুর্ভাব রোধে পর্যটকদেরকে ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করার নির্দেশনার কারণে বন্ধ করে দিতে হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সত্ত্বেও গত ৮ মার্চ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক রুট যেমন কাতার, ভারত, ওমান, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ সীমিত পরিসরে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে গেছে। সবশেষ আন্তর্জাতিক ফ্লাইট RX785 গত ২০ মার্চ স্থানীয় সময় রাত ১১.৩৫ মিনিটে সিঙ্গাপুর থেকে ঢাকায় অবতরণ করে। এছাড়াও অভ্যন্তরীণ রুটে ২১ মার্চ বেলা ১ টা ৫০ মিনিটে আমাদের সর্বশেষ অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট RX742 কক্সবাজার থেকে ঢাকায় অবতরণ করে।

পরিস্থিতি স্বাভাবিকতায় দ্রুত কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দিয়ে রিজেন্টের সিইও বলেন, “এই সঙ্কটের সময়ে, পরবর্তী সপ্তাহ বা মাসগুলোতে এভিয়েশন শিল্পের আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক বাজার পরিস্থিতি, স্বাভাবিক অবস্থার ওপর আমরা সার্বক্ষনিক নজর রাখব। সে হিসেবে আমরা নিজেদের কার্যক্রম আবারও পুরোদমে চালু করতে উদ্যেগী হব, বিমান ভ্রমনের উপরে যাত্রী আস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ তার ফ্লাইট পরিচালনা তথা বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করবে।” নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষেণ করবে।”

রিজেন্ট এয়ারওয়েজ গত ১০ বছরের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় আগামী পথচলায় যাত্রী,ট্রাভেল পার্টনার, পৃষ্ঠপোষক ও সংশ্লিষ্ট সংস্থাসহ সকলের সার্বিক সহযোগিতা ও সমর্থন কামনা করেছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...