১ নভেম্বর থেকে ঢাকা রুটে ইজিপ্ট এয়ারের ফ্লাইট চালু

0

১ নভেম্বর থেকে ঢাকায় নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলো মিশরের রাষ্ট্রীয় এয়ারলাইন্স ইজিপ্ট এয়ার।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে কায়রো-ঢাকা-কায়রো রুটে সপ্তাহে ২টি করে ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দেয় এয়ারলাইন্সটি। গত ১৮ আগস্ট মিশরের রাজধানী কায়রোতে বাংলাদেশ দূতাবাসের মধ্যস্থতায় ইজিপ্ট এয়ার এবং বাংলাদেশের এএলও ঢাকা এভিয়েশনের মধ্যে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনার চুক্তি স্বাক্ষর হয় ।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত মিশরের রাষ্ট্রদূত হাইথাম গোবাসি বলেন, আমাদের মিশর সম্পূর্ণ নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত। কায়রোর বিমানবন্দরে যাত্রীদের করোনা টেস্টের জন্য আরটিপিসিআর ল্যাব রয়েছে। এ ছাড়াও গোটা দেশের সবার ভ্যাকসিন দেওয়া রয়েছে। হোটেলগুলো ৫০ শতাংশ অতিথি নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। মিশর এবং ইজিপ্ট এয়ার মিশরীয় আতিথেয়তা উপভোগ এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য পরিদর্শনের জন্য দেশটি ভ্রমণে বাংলাদেশি যাত্রী-পর্যটকদের আমন্ত্রণ জানাবে।

আগের খবর : ঢাকা-কায়রো রুটে সরাসরি ফ্লাইট

বাংলাদেশে ইজিপ্ট এয়ারের জিএসএ এএলও ঢাকা এভিয়েশনের সিইও ও পরিচালক সৈয়দ আলী সামী বলেন, ঢাকা ও কায়রোর মধ্যে ইজিপ্ট এয়ারের সরাসরি ফ্লাইট শুরুর মাধ্যমে বিভিন্ন স্টেক হোল্ডারদের জন্য বিশাল সুযোগের দ্বার উন্মোচিত হবে। মিশর ছাড়াও ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকা যাত্রীরা যেতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে বাংলাদেশ থেকে সপ্তাহে দুইটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হলেও ভবিষ্যতে আমরা সপ্তাহে ৭ দিনই ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা করছি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, কায়রো স্থানীয় সময় প্রতি সোম ও বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টায় ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে ফ্লাইটটি। পরের দিন বাংলাদেশ সময় রাত একটা পাঁচ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে এটি।

একইভাবে প্রতি মঙ্গল ও শুক্রবার রাত দুইটা ৩৫ মিনিটে ঢাকা ছেড়ে পরের দিন স্থানীয় সময় ভোর ছয়টা ৪০ মিনিটে কায়রোয় পৌঁছাবে ফ্লাইটটি।

এই রুটে এয়ারবাস ৩৩০-৩০০ বা অন্য কোনো নতুন এয়ারক্রাফটে ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইজিপ্ট এয়ার। বিমানে ২০টি বিজনেস ক্লাসসহ মোট ২৮০ আসন থাকবে। যাত্রীর পাশাপাশি ছয় টন সাধারণ কার্গো পরিবহন করতে পারবে বিমান সংস্থাটি।

অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকাগামী বাংলাদেশি যাত্রীরা টিকেটের সাথে অতিরিক্ত ৫০ডলার প্রধান করে কায়রোতে ট্রানজিট নিয়ে মিশরের সমৃদ্ধ ইতিহাস এবং সংস্কৃতি দেখে যেতে পারবে তাদের গন্তব্যস্থলে।

তাছাড়াও বাংলাদেশি নাগরিকরা কায়রোতে খুব সংক্ষিপ্ত ট্রানজিটের মাধ্যমে ইজিপ্ট এয়ার সংযোগকারী ফ্লাইটে জেদ্দা, মদিনা, বাগদাদ, মাস্কাট, দাম্মাম, বাহরাইন, রিয়াদ, দুবাই, আম্মান, বৈরুত, প্যারিস, মিলান, জেনেভা, বার্সেলোনা, এথেন্স, ইস্তাম্বুল, দারেস সালাম, আদিস আবাবা, আবুজা, নাইরোবি ও খার্তুমসহ অজস্র গন্তব্যে যেতে পারবে অত্যন্ত কম ভাড়ায়।

উল্লেখ্য, ইজিপ্ট এয়ায় বর্তমানে এয়ারলাইন্সটির ৬৯টি আধুনিক উড়োজাহাজের একটি বহর নিয়ে মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আফ্রিকা, এশিয়া এবং আমেরিকার ৮০টির অধিক গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

কায়রো-ঢাকা সরাসরি ফ্লাইট চালুর মাধ্যমে দুই দেশের ব্যবসা ও কার্গো পরিবহনে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আশা করা যাচ্ছে। এছাড়া মিশরের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পাবেন এবং পর্যটকরা মিশরের বহুমুখী পর্যটনের সুবিধা ভোগ করবেন।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন