স্পেনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বাংলাদেশ দূতাবাসের সেমিনার

0

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাস উদ্যোগে “[email protected]: Emerging Bangladesh Economy: Reflections on the Spain-Bangladesh Relations”.শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুরে স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ, এনডিসির সভাপতিত্বে এবং দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মো. মুতাসিমুল ইসলামের সঞ্চালনায় উপস্থাপনায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ সেমিনারে কূটনীতিক, ব্যবসায়ী, বুদ্ধিজীবী ও প্রবাসী রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠকরা অংশ নেন।

বক্তরা, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান, অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধাদের অর্জন, ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ নারীর আত্মত্যাগ কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।

বিশেষ বক্তা স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত লে. কর্ণেল (অব:) কাজী সাজ্জাদ আলী জহির, বীর প্রতীক বলেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের “স্বপ্নের সোনার বাংলা ” বাস্তবায়নে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে।

স্পেন প্রবাসী কলামিস্ট চাকলাদার মাহবুব উল আলম মায়ানমার থেকে বাস্তুুচ্যুৎ রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করেন এবং রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে প্রত্যাবর্তনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা কামনা করেন।

স্পেন-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি নুরিয়া লোপেজ তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরী পোষাক রপ্তানিকারক হলেও অন্যান্য শিল্প কারখানাও দ্রুতবেগে সম্প্রসারিত হচ্ছে।

তিনি বাংলাদেশের দক্ষ জনশক্তি, সরকারি প্রনোদনা, ব্যবসা-বাণিজ্যের অনুকূল পরিবেশের ভূয়সী প্রশংসা করে বিদেশীদের বাংলাদেশে অধিকতর বিনিয়োগ ও ব্যবসা বাণিজ্যের আহবান জানান ।

. স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত সেমিনার
. স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত সেমিনার

স্পেনের সান্তিয়াগো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর সান্তিয়াগো ফেরনান্দেজ মসকেরা বলেন, বাংলাদেশের জন্মই হয়েছে বাংলা ভাষার গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্যের মধ্যে দিয়ে। স্প্যানিশ বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম ভাষা যার গুরুত্ব বৈশিক সংস্কৃতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্কের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তিনি অধিক সংখ্যক বাংলাদেশীকে স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষার আহবান জানান।

বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের প্রথম রাষ্ট্রদূত আরতুরো পেরেজ মার্টিনেজ তার–দীর্ঘ কূটনৈতিক জীবনের অভিজ্ঞতার আলোকে বলেন, বাংলাদেশ ও স্পেনের বিদ্যমান সম্পর্ক বিভিন্ন ক্ষেত্রে আরো উচ্চতায় নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। তিনি দু’ দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া, ভাষা ও ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে আরো উদ্যোগ গ্রহণের আহবান জানান।

বাংলাদেশের বর্তমান আর্থ সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন সূচক উল্লেখপূর্বক রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বাংলাদেশ বিশ্ব অর্থনীতিতে এক অন্যতম উদিয়মান অর্থনেতিক শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

বাংলাদেশ সরকার করোনা অতিমারী সাহসিকতার সাথে মোকাবেলা করে অর্থনীতির চাকাকে সচল রেখেছেন উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, অতিমারী মোকাবেলায় জীবন ও জীবিকার সমন্বয় সাধনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সরকার ১৫.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি “প্রণোদনা কর্মসূচী” দিয়েছে, যা জিডিপি এর ৪.৫%।

বাংলাদেশ-স্পেনের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক বিশ্লেষণ করতে গিয়ে বলেন, দু’ দেশের সম্পর্ক বিভিন্ন ক্ষেত্রে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। দু’ দেশের মধ্যে নিয়মিত ফরেন অফিস কনসাল্টেশন, দ্বৈতকর পরিহার, বিনিয়োগ উন্নয়ন ও সুরক্ষা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক আরো সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

তিনি বিদ্যমান সম্পর্ক আরো উচ্চতর পর্যায়ে নিতে দু’ দেশের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের রাষ্ট্রীয় সফরের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এবং এ বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন