সৌদিগামী প্রবাসী কর্মীদের কোয়ারেন্টিনে ভর্তুকি দেবে সরকার

0

সৌদিগামীদের হোটেল কোয়ারেন্টাইন খরচের টাকা দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানালো প্রবাসী মন্ত্রণালয়। ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের তহবিল থেকে কোয়ারেন্টাইন খরচের ২৫ হাজার টাকা দেয়া হবে। সামনের দিনে যারা যাবেন, তাদের টাকা এয়ারলাইন্সকে পরিশোধ করা হবে। আর গত ২০ মে থেকে এরইমধ্যে যারা সৌদি গিয়েছেন, তাদের অর্থ দেয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে। পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যগামী প্রবাসী কর্মীদের টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে বয়স শিথিল করার বিষয়টিও সরকার বিবেচনা করছে।

টানা এক সপ্তাহ ধরে সৌদি আরবে যেতে কোয়ারেন্টাইন সংক্রান্ত সৌদি সরকারের নির্দেশনায় বিপাকে পড়ে হাজার হাজার প্রবাসীকর্মী। অনিশ্চয়তায় পড়ে অনেকের কর্মস্থলে যাত্রা। এর মধ্যে মরার ওপর খাড়ায় ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে হোটেল খরচ। হোটেল বুকিং করতে না পারায় গত দুই দিনে ফ্লাইট ধরতে পারেননি সহস্রাধিক সৌদিগামী অভিবাসী কর্মী।

এ অবস্থায় যে সৌদি প্রবাসীর ভিসার মেয়াদ ৩০ জুনের মধ্যে শেষ হয়ে যাচ্ছে, তাদের কোয়ারেন্টাইনের খরচ মেটাতে অর্থ সহায়তা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিল সরকার।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী বিমরান আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, কোয়ারেন্টিন খরচের ৫০ শতাংশ কিংবা ২৫ হাজার টাকা এ দুয়ের যে অর্থ কম হবে, সেটি প্রণোদনা হিসেবে দেয়া হবে। গত ২০ মে থেকে যারা সৌদি আরব গিয়েছেন, তাদেরও এ সহায়তার আওতায় আনার কথা পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, যারা সৌদিতে ফিরে যাবেন তারা এ সহায়তার মধ্যে পড়বেন। আর নতুনরা এ সুবিধার মধ্যে পড়বে না। তবে হোটেল বুকিং নিয়েও দেখা দিয়েছে নানা জটিলতা। প্রতিদিনই বাতিল হচ্ছে অনেক সৌদি প্রবাসীর যাত্রা।

প্রবাসীদের সব ধরনের সমস্যা সমাধানে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন জানিয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী আরও বলেন, আমাকে প্রধানমন্ত্রী ফোন দিয়েছেন। তিনি সৌদি আরবের কর্মীর যত ধরনের সমস্যা রয়েছে সেগুলো সমাধান করতে নির্দেশ দিয়েছেন। রোববার এ নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় বসতে যাচ্ছেন নীতিনির্ধারকরা। এ ছাড়া প্রবাসীদের কম খরচে কোয়ারেন্টিন নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সৌদি আরবে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে উদ্যোগ নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে ।

এদিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজ দপ্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সৌদি আরবে গেলে প্রবাসীদের এক সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তবে সৌদি সরকার তাদের কোয়ারেন্টিনের জন্য যেসব হোটেল নির্ধারণ করেছে, সেগুলো অনেক ব্যয়বহুল। প্রবাসীদের এসব হোটেলে যেতে আগ্রহ কম।

ড. মোমেন বলেন, তাদের (প্রবাসী) কষ্ট দেখে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, আপনারা হোটেলের ব্যবস্থা করেন। তাই আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, প্রবাসীরা সৌদিতে গেলে আমরা সাবসিডি (ভর্তুকি) দেব। বিষয়টি নিয়ে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর সঙ্গে আমি আলাপ করেছি।

দুই ডোজ টিকা আর পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট নিয়ে গেলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয় না। তাই সেখানে যেসব কর্মী যাবেন, তাঁদের জন্য টিকা প্রদানে বয়স শিথিল করার কথা ভাবছে সরকার।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে দুই ডোজ টিকা নেওয়া থাকলে হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা লাগে না। বিদেশে কর্মীরা তখন সরাসরি বাসায় যেতে পারেন। তবে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর প্রবাসীদের বয়স বেশির ভাগ ২০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। আর আমরা টিকা দিচ্ছি ৪০ বছরের বেশি বয়সীদের। তাই মধ্যপ্রাচ্যগামী প্রবাসীদের টিকা দিতে বয়স শিথিলের চিন্তা করছি। শুক্রবার একটি আন্তমন্ত্রণালয় বৈঠক আছে, সেখানে এই প্রস্তাব দেওয়া হবে।’

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন