লেবানন থেকে ইচ্ছুক সকলই দেশে ফিরবে : রাষ্ট্রদূত

0

‘লেবাননে বৈধ কাগজপত্রবিহীন এবং স্বেচ্ছায় দেশে ফিরতে ইচ্ছুক সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের পর্যায়ক্রমে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। বিদেশে মাটিতে অবৈধ হয়ে সীমাহীন কষ্ঠ নিয়ে বাংলাদেশিরা জীবন চালাবেন তা কখনই চায়না কিংবা মেনে নিতে পারে না বাংলাদেশ দূতাবাস।

এমন প্রত্যাশা আর অঙ্গীকারের কথা বলেছেন লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার ।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানী বৈরুতে বাংলাদেশ দূতাবাসে স্বেচ্ছায় দেশে ফেরা কর্মসূচির তৃতীয় ধাপের বাংলাদেশির হাতে বিমান টিকেট হস্তান্তর অনুষ্ঠানে আকাশযাত্রার সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, নানা সময়ে নানা কারণে অনেক বাংলাদেশি এ দেশে থাকার বৈধতা হারিয়েছেন, যাদের অনেকে দেশে ফেরার জন্য বছর বছর অপেক্ষার প্রহর গুনেছেন।এর মধ্য আবার গত ৫ মাস ধরে লেবাননে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি আর অর্থনৈতিক মন্দা বিশেষ করে ডলার সংকটের প্রভাব পড়ে বিদেশি কর্মীদের উপর। এ সময়ে অনেক কর্মী চাকরিচ্যুত হওয়ার পাশাপাশি বৈধতাও হারায়।

কাগজপত্রবিহীন এসব বাংলাদেশিরা দেশে ফিরে যেতে সহায়তা কামনায় ছুটে আসে বৈরুত দূতাবাসে- এমনটি জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, গত দুবছর ধরে নানা দেন দরবার, পরিশ্রম আর অনেক কাঠখড় পুড়ে লেবানন সরকার কাছ থেকে কাগজপত্র বিহীন বাংলাদেশিদের স্বল্প জরিমানায় দেশে ফেরানোর সুযোগ নিতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ দূতাবাস।

এ লক্ষ্যে দূতাবাসের নেওয়া বিশেষ কর্মসূচির আওতায় দুই ধাপে স্বেচ্ছায় দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রায় ৫ হাজার অবৈধ প্রবাসী বাংলাদেশি নাম নিবন্ধন করেন। যার মধ্যে এ পর্যন্ত ১ হাজার জন অবৈধ প্রবাসী দেশে ফেরার সুযোগ পেল। মাত্র এক বছরের জরিমানা ও এয়ার টিকেটের মূল্য পরিশোধ করেই তারা দেশে ফিরতে পারছেন’,যোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন,’লেবাননের রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়া কিছুটা বিলম্বিত হয়, তবে আমরা আশা করছি নতুন সরকার প্রতিষ্ঠার ফরে এই কর্মসূচি বেগবান হবে। ‘

‘লেবানন সরকারের এই সুযোগ আমরা কোনভাবে হাতছাড়া করতে চাই না এবং কাগজপত্রবিহীন সর্বােচ্চ সংখ্যক বাংলাদেশিকে স্বেচ্ছায় দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য আমরা বদ্ধপরিকর। এবং লক্ষ্যে আমরা সর্বাত্মক চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি। কাজেই দেরিতে হলেও ইচ্ছুক সকলকেই পর্যায়ক্রমে দেশে ফিরে যেতে পারবেন আশা করি।’

 ৪৭১ জনের হাতে বিমান টিকেট তুলে দেন লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার
৪৭১ জনের হাতে বিমান টিকেট তুলে দেন লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার

অনুষ্ঠানে ৪৭১ জনের হাতে বিমান টিকেট তুলে দেন লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার। এ সময় শ্রম সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উৎফুল্ল প্রবাসীরা হাতে এয়ার টিকেট পেয়ে বৈরুত দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫- ২৩ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে তৃতীয় দফায় দেশে ফিরছেন লেবাননে অবৈধভাবে বসবাসরত ৪৭১ জন বাংলাদেশি। এদের মধ্যে শারীরিকভাবে অসুস্থ ২৪ জন রয়েছেন। বৈরুত থেকে ১৫-২৩ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে এয়ার এরাবিয়ার ৬ টি ফ্লাইটে তারা দেশে ফিরবেন।

এয়ার টিকেট নিতে আসা বৈধ কাগজবিহীন প্রবাসীরা আকাশযাত্রাকে জানায়, লেবাননের বর্তমান অবস্থা খুবই ভয়াবহ। আগের মত কাজ পাওয়া যাচ্ছে না। কাজ করলেও মালিক সঠিকভাবে বেতন পরিশোধ করছে না। কাজ হারিয়ে অনেকেই বেকার । খাবার খরচ ও ঘরভাড়া দিতে হিমসিম খাচ্ছি। দেশ থেকে টাকা এনে খরচ চালাচ্ছি।’

ডলার সংকটের কারনে ৫ মাস ধরে পরিবারের নিকট টাকা পাঠাতে পারছি না। প্রবাসে এভাবে আর কতদিন? এখন আর পারছি না। তাই দেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

জানা গেছে, কাগজপত্রবিহীন আরো ২০ হাজার বাংলাদেশি দূতাবাসের বিশেষ কর্মসূচির আওতায় দেশে যাওয়ার অপেক্ষায় আছে। তাদের মধ্যে বেশিরভাগই নারী শ্রমিক।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...