লেবাননে সোমবার থেকে লকডাউন শিথিল, খুলছে অনেককিছুই

0

লেবাননে শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকে প্রাধান্যে দিয়ে সোমবার থেকে লকডাউন আংশিক শিথিল করা ঘোষণা দিয়েছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হাসান ডিয়াব। এর ফলে খুলছে দোকানপাট, হোটেল-রেস্তােরাঁ, ‌মানি এক্সচেঞ্জ, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান শিল্পকারখানাসহ অনেক কিছু।

রবিবার (১৭ মে) এক টেলিভিশন ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এই ঘোষণা দিতে গিয়ে বলেন, “আমি আজ পঞ্চম পর্যায়ের পরিকল্পনার ভিত্তিতে আগামীকাল (সােমবার) দেশকে পুনরায় খোলার ঘোষণা করছি। যার লক্ষ্য হ’ল লকডাউনের “গুরুতর অর্থনৈতিক ও সামাজিক প্রতিকূলতা” হ্রাস করা। কারন মানুষের জীবন বাঁচানো অন্য কোনও গণনার আগেই আসে”

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ ফাহমি এক বিজ্ঞপ্তিতে আংশিক পুনরায় খোলার বিস্তারিত তুলে ধরেন। তবে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত কারফিউ চলবে।

রেস্তোঁরা ও কফিশপগুলো ৫০ শতাংশ ধারণক্ষমতাতে ভোর ৫ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে তারা নার্গিলিহ পরিবেশন করতে পারবে না । গ্রাহকরা একে অপরের থেকে নিরাপদে দূরে অর্থাৎ শারিরীক দূরত্ব বজায় রাখবেন এবং প্রয়োজনীয় স্যানিটাইজেশন সুবিধার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

ফাস্টফুড এবং মিষ্টির দোকানগুলিতে শুধু টেকওয়ে পরিষেবা বা সরবরাহ করতে পারবে।

বাণিজ্যিক পরিষেবাগুলি, যেমন মানি এক্সচেঞ্জ শপগুলি সকাল ৮ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টার মধ্যে পরিচালিত হবে, যখন কেন্দ্রীয় ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে এবং লেবাননের অ্যাসোসিয়েশন অফ ব্যাংকস ব্যাংকগুলি পুনরায় খোলার বিষয়ে রায় দেবে।

ব্যবসায়ীদের ভোর ৫ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে এবং কংক্রিট ওয়ার্কশপগুলি রবিবার এবং জাতীয় ছুটির দিন ব্যতীত সারা সপ্তাহ সকাল ৭টা থেকে ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখতে পারবে।

পাইকারি বাজার, মুদির দোকান, মাংসের দোকান (কসাই) এবং মাছ ব্যবসায়ীরা মধ্যরাত ৩ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত এবং গুদামগুলি ভোর ৫ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত কাজ করতে পারবে।

ক্লোরিনযুক্ত সুইমিং পুলগুলি ভোর ৫ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে সমুদ্রে সাঁতার কাটানোর অনুমতি এখনও দেওয়া হয়নি। তেমনি সৈকত, পার্ক ও কর্নিশে বেড়ানো বা হাটাচলা নিষেধ। সিনেমা, মল এবং ক্যাসিনো পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

যাদের যানবাহনের নম্বর প্লেট বিজোড় সংখ্যায় শেষ হয়েছে সেগুলো কেবল সোমবার, বুধবার ও শুক্রবার রাস্তায় চলাচল করতে পারবে। অন্যদিকে যে সব যানবাহনের নম্বর প্লেট বজোড় সংখ্যায় শেষ হয়েছেসেগুলো কেবল মঙ্গলবার, বৃহস্পতিবার ও শনিবার রাস্তায় চলাচল করতে পারবে। আর রবিবার জোড়-বিজোড় নম্বর প্লেটের সকল যানবাহন একসঙ্গে চলচলা করতে পারবে। পৌরসভাগুলির তাদের এলাকার মধ্যে রাস্তা বন্ধ করার ক্ষমতা রয়েছে।

ভ্যান এবং বাসে যাত্রী এক-তৃতীয়াংশ যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে পারবে। তাদের অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে।

কল-কারখানা, বেকারি, মেডিকেল সংস্থা, গ্যাস স্টেশন এবং হোটেলগুলি সব সময় খোলা থাকবে ।

যারা মিডিয়া, সুরক্ষা সংস্থাগুলি এবং স্বাস্থ্য পেশায় কাজ করেন তাদের জন্য এই বিধিগুলির ব্যতিক্রম হবে।

এদিকে রোববার শিক্ষামন্ত্রী তারেক আল-মাজজুব ঘোষণা করেছেন যে, তিনি “সুনির্দিষ্ট বিধিবিধানের ভিত্তিতে এবং শিক্ষাবর্ষ সমাপ্তি ঘোষনার ভিত্তিতে ২০২০ সালের সকল শাখায় সরকারি স্কুল পরীক্ষা বাতিল করার প্রস্তাব দিয়েছেন।”

“বিধি মোতাবেক সকল শিক্ষার্থী উচ্চ গ্রেডে পদোন্নতি পাবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলির জন্য অনলাইন শিক্ষার একটি বিশেষ পদ্ধতি আমরা উপস্থাপন করব,” মাজজুব বলেন।

তিনি জনগণের বিশেষ প্রয়োজনে স্কুল ও কেন্দ্র পুনরায় চালু করার ঘোষণা শিক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা নির্ধারিত তারিখ পর্যন্ত স্থগিত করেন।

“জনগণের জীবন রক্ষা করা একটি অগ্রাধিকার এবং আসন্ন শিক্ষাবর্ষে আমরা যা হারিয়েছি তা পূরণ করব,” মেজবুব নিশ্চিত করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী হাসান ডিয়াব বলেন, অর্থনৈতিক জীবনে ফিরে আসার জন্য সতর্কতার সাথে ভারসাম্য রক্ষা করা এবং ভাইরাসের বিস্তার রোধ করা ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতার মধ্যেও পড়ে। দুর্ভাগ্যজনক যে কিছু মানুষ প্রতিরোধ ব্যবস্থা না মেনে তাদের নিজের জীবনকে যেমন ঝুঁকিতে ফেলেছে তেমনি অন্যের জীবনকে হালকাভাবে নিচ্ছে।”

“আমাদের সচেতন থাকতে হবে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং আমাদের সমাজকে সুরক্ষিত করতে এবং আমাদের ত্যাগ স্বীকারের জন্য প্রতিরোধ ও সুরক্ষা নির্দেশিকা অনুসরণ করতে হবে”, তিনি আরও যোগ করেন।

“আমি সমস্ত লেবাননের প্রতি আহ্বান জানিয়েছি যে দেশের পুনর্নির্মাণের বিষয়টি খুব সতর্কতার সাথে মোকাবেলা করার জন্য, দায়িত্ব গ্রহণে আমাদের সাথে অংশীদার হওয়ার এবং সমাজকে পতন থেকে রক্ষায় রাষ্ট্রের সাথে সহযোগিতা করার জন্য।”

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...