লেবাননে লকডাউন অমান্যে ৩ বছর জেল, মাঠে নিরাপত্তা ও সেনাবাহিনী

প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে ঘরে থাকার আহবান

0

করোভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে নাগরিকদের ঘরে থাকা নিশ্চিতে এবং কঠোর লকডাউন ব্যবস্থা বাস্তবায়নে লেবাননে রবিবার থেকে নিরাপত্তা বাহিনী ও সেনা ইউনিটগুলোকে মোতায়েন করেছে দেশটির সরকার। দেশটি এ পর্যন্ত ২৪৮ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, যার মধ্যে ৪ জন মারা গেছে।

অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “২২ মার্চ ভোর ৬টা থেকে এই সকলের জন্য জরুরী অবস্থা প্রযোজ্য হবে এবং লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে নিরাপত্তা বাহিনী। এজন্য জরুরী অবস্থা অমান্যকারীদের জরিমানা করা হতে পারে এবং তিন বছর পর্যন্ত কারাবাসের সাজা দেয়া হতে পারে।

জরুরী অবস্থা জারি হওয়ার পর বেশ কিছু হেলিকপ্টার বৈরুতের আকাশে দেখা যায়, যেগুলো থেকে মাইকিং করে নাগরিকদের বাড়িতে থাকার আহ্বান জানানো হয়। এসময় প্রায় সব দোকানপাট বন্ধ ছিল এবং রাস্তায় হাতেগোনা যানবাহন চলাচল করছিল।

অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বাহিনী তাদের টুইটার একাউন্টে ঘোষণা করেছে যে, রবিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত, তারা ১৩৮ টি আইন অমান্যের মামলা করেছে।

সুরক্ষা বাহিনীর সদস্য ঘর থেকে বের হওয়ার প্রমাণপত্র দেখছেন, পাশে  টহলরত বাহিনী সদস্যরা
সুরক্ষা বাহিনীর সদস্য ঘর থেকে বের হওয়ার প্রমাণপত্র দেখছেন, পাশে টহলরত বাহিনী সদস্যরা

এদিকে স্যোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, বৈরুতের হামরার রাস্তায় টহল দিচ্ছে লেবাননের সেনাবাহিনী। এসময় একজন সৈনিককে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন স্পিকারে বাসিন্দাদের বলতে শোনা গেছে “আপনার সবাই ঘরে অবস্থান করুন, কেউ দয়া করে বের হবেন না। শনিবার রাতে একটি অফিসিয়াল টুইটে লেবানন সেনাবাহিনী জানায়, “এই সন্ধ্যায় থেকে সেনা ইউনিটগুলো সরকারের জনসমাগম রোধে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়বে। ”

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াবের একটি বক্তৃতার মাধ্যমে এই খবর আসে যে নিরাপত্তা বাহিনী নাগরিকদের বাড়িতে রাখার জন্য কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করব ।

ফেব্রুয়ারির ২১ তারিখ প্রথম করোনা ভাইরাস রোগী শনাক্তের পর থেকে লেবানন সরকার ক্রমান্বয়ে তাদের স্থলসীমা, বিমানবন্দর, এবং সমুদ্র বন্দর বন্ধ করে ধীরে ধীরে লকডাউন ব্যবস্থায় যায় ।

নিরাপত্তা  ও সেনাবাহিনী নামার পর দেশটির নাগরিক ও প্রবাসী এখন ঘরে অবস্থান করছেন
নিরাপত্তা ও সেনাবাহিনী নামার পর দেশটির নাগরিক ও প্রবাসী এখন ঘরে অবস্থান করছেন

এদিকে প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে লেবাবন সরকারের লকডাউন নিষেধাজ্ঞা মেনে চলার আহবান জানিয়েছে রাজধানী বৈরুতের বাংলাদেশ দূতাবাস। সবাইকে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয় ।

বৈরুত দূতাবাসের চার্জ দ্যা এফেয়ারস আব্দুল্লাহ আল মামুন আকাশযাত্রাকে বলেন,”রোববার থেকে যেহেতু সমগ্র লেবাননে সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী টহল দিচ্ছে সেহেতুবাংলাদেশিদের বিনা প্রয়োজনে অবাধে চলাফেরা, যে কোন ধরনের জমায়েত,পাড়া মহল্লায় বা বাংলদেশি দোকানপাটে আড্ডা না দিয়ে ঘরে থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি।”

তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাস রোধে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে লেবানন সরকারের সিদ্ধান্তকে আমরা সাধুবাদ জানাই। দূতাবাসের পক্ষ থেকে আমরা এদেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রাখছি। এখন পর্যন্ত কোন বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি। ”

যে কোন জরুরী পরিস্থিতিতে কফিলের সাথে যোগাযোগ এবং বৈরুত দূতাবাসের হটলাইন বা হেল্পলাইনে যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেন। দূতাবাসের হটলাইনঃ ৭০৬৩৫২৭৮, হেল্পলাইনঃ ৮১৭৪৪২০৭।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...