যুক্তরাজ্যপ্রবাসীরা চট্টগ্রামে এলেই থাকতে হবে রেল হাসপাতালের কোয়ারেন্টিনে

0

নতুন ধরনের করোনা সংক্রমণের কারণে লন্ডন থেকে ফেরা যাত্রীদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে ১ জানুয়ারি থেকে। সরকারিভাবে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে, চট্টগ্রামসহ দেশের তিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে লন্ডনফেরত সব যাত্রীকেই বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দেন, যারাই লন্ডন থেকে আসবেন তাদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

বিদেশ থেকে আসা প্রবাসীদের কোয়ারেন্টিনে রাখার জন্য চট্টগ্রামে প্রস্তুত রাখা রয়েছে সিআরবির রেলওয়ে হাসপাতাল। এ হাসপাতালে ৫০টি বেড তৈরি রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টিনের জন্য। এই ৫০ বেডের অতিরিক্ত যাত্রী আসলে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে রাখা হবে এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের জন্য চট্টগ্রামে সরাসরি কোন ফ্লাইট না থাকলেও কেউ যদি ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে চট্টগ্রামে আসে, তাদের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে রেলওয়ে হাসপাতাল। যদি এতে সংকুলান না হয় তবেই সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে রাখা হবে।’

জানা গেছে, চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে বিদেশ থেকে যারা কোভিড সার্টিফিকেট ছাড়া এসেছেন, তাদেরকে বাধ্যতামুলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৫৪ জনকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে চট্টগ্রামে। এর সঙ্গে এবার যুক্ত হচ্ছে লন্ডন থেকে আসা সব যাত্রীর জন্য বাধ্যতামূলক ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনের নিয়ম।

কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার বলেন, করোনাভাইরাসের ‘নতুন ধরনের’ ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ মেলায় নতুন করে শঙ্কার ছায়া নেমেছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। তাই বেশ কয়েকটি দেশ আন্তজাতিক ফ্লাইটও বন্ধ করেছে। আমাদের চট্টগ্রাম বিমানবন্দর দিয়ে প্রবাস থেকে যারা আসবে তাদের কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় এর দেখভাল করবেন।

প্রসঙ্গত, মূলত যুক্তরাজ্য থেকে এই ভাইরাস ছড়ানোর কারণে সে দেশের সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করছে বিভিন্ন দেশ। বাংলাদেশ এখনও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্লাইট চালু রাখলেও ইতোমধ্যে ৪০টি দেশ তাদের ফ্লাইট বাতিল করেছে। করোনাভাইরাসের এই নতুন মোড় নেওয়ার কারণে বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরব, ওমান ও কুয়েত ইতোমধ্যে তাদের সব ফ্লাইট বাতিলের পাশাপাশি সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইটও বাতিল করেছে। কিন্তু ওমান মঙ্গলবার থেকে আবার চালু করেছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট।

এদিকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু পর থেকে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে বিদেশে থেকে আসা মোট ৫৪ জনকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। প্রবাস থেকে আসার সময় তাদের করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ছিল না। এসব প্রবাসীকে রাখা হয় নগরের সিআরবিতে অবস্থিত রেলওয়ে হাসপাতালে। কোয়ারেন্টিনে থাকার পরে তাদের আবার করোনা পরীক্ষা করে পাঠানো হয় পরিবারের কাছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন