যাত্রী সংকটে শনিবার পর্যন্ত বিমান বাংলাদেশের সব ফ্লাইট বাতিল

0

যাত্রী স্বল্পতার কারণে অভ্যন্তরীণ রুটে তিন দিনের সব ফ্লাইট বাতিল করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। তবে, অভ্যন্তরীণ একই রুটে বেসরকারি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ও নভোএয়ার ফ্লাইট চলাচল অব্যাহত রেখেছে।

রাষ্ট্রয়াত্ব বিমানসংস্থাটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার (৪ জুন) থেকে ‍শুরু করে শনিবার (৬ ‍জুন) পর্যন্ত বিমানের কোনো ফ্লাইট চলবে না। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়নি।

এদিকে, বিমান যাত্রা বাতিল করলেও বেসরকারি দুই এয়ারলাইন্স কোম্পানি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ও নভোএয়ার তাদের ফ্লাইট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

বাংলাদেশ বিমানের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) তাহেরা খন্দকার বিমানের ফ্লাইট বাতিলের তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, “যাত্রী না পাওয়ার কারণেই ৬ জুন পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ৪, ৫ ও ৬ জুন যেসব ফ্লাইট শিডিউল করা ছিল, সেগুলো চলবে না। যাত্রী স্বল্পতার কারণে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি।”
করোনাভাইরাসের কারণে দুই মাসেরও বেশি সময় অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে বিমান চলাচল বন্ধ ছিল। এরপর সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে সবকিছু খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে ১ জুন থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে স্বল্প পরিসরে বিমান চলাচল শুরু হয়।

প্রথম দিনে বাংলাদেশ বিমান কিছু ফ্লাইট বাতিল করলেও কয়েকটি রুটে তাদের ফ্লাইট চলাচল করে। তবে যাত্রী না থাকায় ২ জুন মঙ্গলবার ও ৩ জুন বুধবার সব ফ্লাইট বাতিল করে সংস্থাটি। এবার ৪ থেকে ৬ জুন পর্যন্ত সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এ নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত এই এয়ারলাইন্স ২৩টি ফ্লাইট বাতিল করলো।

যাত্রী কিছুটা কম থাকলেও ফ্লাইট বাতিলের কোনো চিন্তা আপাতত করছে না বলে জানিয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ও নভোএয়ার কর্তৃপক্ষ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।