মৃত্যুদণ্ড বাতিল করছে মালয়েশিয়া

0
Travelion – Mobile

‘বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড’ বাতিল করছে মালয়েশিয়া। শুক্রবার দেশটির সরকারের তরফ থেকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এর ফলে তাদের আইন ও দণ্ডবিধিতে আর ‘বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড’ বলে কোনো বিষয় থাকছে না।

বিষয়টি নিয়ে এখন থেকে আদালতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। মানবাধিকার গ্রুপগুলো একে এই অঞ্চলের জন্য একটি প্রগতিশীল পদক্ষেপ বলে উল্লেখ করেছে।

মালয়েশিয়ার আইনমন্ত্রী ওয়ান জুনাইদি তুয়ানকু জাফর এক বিবৃতিতে বলেছেন, মারাত্মক অপরাধের জন্য বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ডের বদলে আদালতের নির্দেশনায় ‘বিকল্প সাজা’র ব্যবস্হা করা হবে।

তিনি বলেন, এতে ফৌজদারি বিচার ব্যবস্হার উন্নতিতে দেশের নেতৃত্বের স্বচ্ছতা প্রতিফলিত হয়েছে, সব পক্ষের অধিকার সুরক্ষিত এবং নিশ্চিত করা নিশ্চিত করার ওপর সরকারের জোর প্রতিফলিত হয়েছে।’ বিবৃতিতে বলা হয়, এজন্য সংশ্লিষ্ট আইন সংশোধন করা হবে।

amar lab – mobile

আরও পড়তে পারেন : মালয়েশিয়ায় ভিসা জালিয়াতিতে ৪ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

মাদক সংক্রান্তসহ যেসব অপরাধের জন্য মৃত্যুদণ্ডের বিধান রয়েছে সেগুলোর জন্য বিকল্প সাজা কী হতে পারে, তা নির্ধারণে আরো গবেষণা করা হবে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অনেক দেশের মতো মালয়েশিয়ার মাদক আইন অত্যন্ত কঠোর। পাচারকারীদের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রয়েছে।

২০১৮ সালে মালয়েশিয়া মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ওপর স্থগিতাদেশ ঘোষণা করে। তবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আইনগুলো থেকে গেছে। এছাড়া আদালতে দোষী সাব্যস্ত মাদক পাচারকারীদের বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার বিধানও রয়ে গেছে।

সন্ত্রাসী কার্যক্রম, খুন, ধর্ষণের সাজা হিসেবে এখনো দেশটিতে মৃত্যুদণ্ড বাধ্যতামূলক। মৃত্যুদণ্ড বিলোপে মানবাধিকার গ্রুপগুলোর তিন বছর ধরে প্রচার চালানোর পর ঐদিন সরকারের তরফ থেকে এ ঘোষণা আসে। মানবাধিকারগুলো গ্রুপগুলো বলেছে, দেশটির সরকারের এ নতুন পদক্ষেপে তাদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হতে যাচ্ছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন