মালয়েশিয়ায় সেরা গবেষকের স্বীকৃতি বাংলাদেশি অধ্যাপক তারিকুল ইসলামের

0

মালয়েশিয়ায় সেরা গবেষকের স্বীকৃতি পেয়েছেন বাংলাদেশি শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. তারিকুল ইসলাম। দেশটির খ্যাতনামা উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘ইউনিভার্সিটি কেবাংসান মালয়েশিয়া (ইউকেএম)’ থেকে ‘মালয়েশিয়া রিসার্চ অ্যাসেসমেন্ট’ (MyRA) পুরষ্কার অর্জন করেন তিনি।

বুধবার (১৮ মে) কুয়াললামপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ইইউকেএম-এর ডেপুটি ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর দাতো ড. আব্দুল ওয়াহাব মোহাম্মদ কাছ থেকে) পুরষ্কার ও সনদ গ্রহণ করেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।

উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষমতা মূল্যায়নে প্রবর্তিত ‘মালয়েশিয়া রিসার্চ অ্যাসেসমেন্ট’ (MyRA) পুরস্কারের উদ্দেশ্য হল কর্মক্ষমতা উন্নত করার জন্য সকল শিক্ষাবিদদের প্রশংসা করা, স্বীকৃতি দেওয়া এবং অনুপ্রাণিত করা। ‘ইউনিভার্সিটি কেবাংসান মালয়েশিয়া (ইউকেএম) ২০০৬ সাল থেকে গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় হিসাবে ঘোষিত মালয়েশিয়ার ৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটি।

Travelion – Mobile

ইউকেএম’র ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক এবং সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. তারিকুল ইসলাম একটি গবেষণা গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন এবং তার অধীনে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীরা গবেষণার কাজে নিয়োজিত আছেন।

ল্যাবরটরিতে কর্মরত অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।
ল্যাবরটরিতে কর্মরত অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।

ড. তারিকুল ইসলাম, এর আগে বেশ কয়েকটি স্বর্ণপদক পুরস্কার পেয়েছেন এবং বহু বছর ধরে ইইকেএমএর -এর শীর্ষ গবেষক আছেন। তিনি প্রায় ৩০ জন পিএইচডি ২০ জন এম.এসসি থিসিস তত্ত্বাবধান করেছেন। তিনি ১০ টিরও বেশি পোস্টডক্স এবং ভিজিটিং গবেষককে পরামর্শ দিয়েছেন।

এ ছাড়া অধ্যাপক তারিকুল, জাপানের কিউশু ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির একজন ভিজিটিং প্রফেসর। তিনি অ্যান্টেনা, মেটাম্যাটেরিয়ালস, এবং মাইক্রোওয়েভ ইমেজিং সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ের উপর প্রায় ৫০০টি গবেষণা জার্নাল নিবন্ধের লেখক এবং ২২টি ইনভেন্টরি পেটেন্ট দাখিল করেছেন।

অধ্যাপক তারিকুল নটরডেম কলেজ ঢাকা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র ছিলেন । তিনি স্তন এবং মাথার টিউমারের মতো রোগ নির্ণয়ের যন্ত্রের জন্য জাপান, সৌদি আরব, কুয়েত এবং কাতারের মতো বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সহযোগিতামূলক গবেষণা পরিচালনা করছেন। তিনি ন্যানো স্যাটেলাইটের জন্য ছোট অ্যান্টেনা উন্নয়নেও সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন।

স্বীকৃতিতে অনূভূতি জানাতে গিয়ে অধ্যাপক মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশি গবেষকরা সুনামের সাথে কাজ করছেন। মালয়েশিয়াতেও এর ব্যতিক্রম নয়, তার প্রমাণ দিতে পরে গর্ববোধ করছি।

তিনি বাংলাদেশি গবেষকদের সহযোগিতা করার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন বলেও জানান ।

al sohar – mobile

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন