প্রবাসী গাও জীবনের গান

মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের নিয়ে 'এমএম লাইভ-সিঙ্গারস অব লাইফ’ শুরু

0

‘প্রবাসী গাও জীবনের গান’। গলা ছেড়ে, কন্ঠের মাধুর্য্যে এবার গাইবে রেমিট্যান্সযোদ্ধা প্রবাসী বাংলাদেশিরা । প্রতিভাবান প্রবাসীরা এ সুযোগ পাচ্ছেন ‘এমএম লাইভ-সিঙ্গারস অব লাইফ-২০২০’ সংগীত প্রতিযোগিতায়। শুরু হয়েছে মালয়েশিয়ায়। অংশ নিতে পারেবন মালয়েশিয়া ছাড়াও সিঙ্গাপুর, ব্রুনাই, ইন্দোনেশিয়া এবং থাইল্যান্ডের প্রবাসী বাংলাদেশিরা। অনলাইনে চলছে এই জমকালো প্রতিযোগিতায় রেজিস্ট্রেশন ও অডিশন রাউন্ড। শেষ সময় ৩১ অক্টোবর।

রোববার (২০ অক্টোবর) থেকে স্থানীয় সময় দুপুরে কুয়ালালামপুর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান আয়োজক সংস্থা এমএম লাইভের কো-ফাউন্ডার ও প্রধান নির্বাহী জাফর ফিরোজ। এ সময় তার সাথে ছিলেন সংস্থার কর্মকর্তা অ্যাডমিন ক্রিতানা।

জাফর ফিরোজ বলেন, ‘প্রবাসী প্রতিভার সন্ধানের পাশাপাশি বাঙালি সুরকে বিশ্ব দরবারে ছড়িয়ে দেয়া এই আয়ােজনের মূল লক্ষ্য। সে সাথে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মালয় এবং বাঙালি সংস্কৃতির মাঝে মেলবন্ধন তৈরি করাও আমাদের অন্যতম লক্ষ্য।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রতিযোগীদের এমএম লাইভ অ্যাপসে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করতে হবে। আগ্রহী প্রতিযোগীরা মোবাইলে গানের ভিডিও ধারণ করে এই অ্যাপসে অডিশনে অপসনে আপলোড করতে হবে । ভিডিও জমা দেয়ার শেষ দিন ৩১ অক্টোবর ।

আপলোড করা গানের ভিডিও থেকে প্রাথমিক বাছাইে ১০০ জনকে নির্বাচিত করা হবে। সেগুলো দর্শক ভোটের জন্য এমএম লাইভ অ্যাপসে ভিডিওটি উন্মুক্ত করা হবে। দর্শকদের ভোট এবং বিজ্ঞ বিচারকমণ্ডলীর রায়ে সেখান থেকে ৫০ জনকে স্টুডিও রাউন্ডের জন্য বাছাই করা হবে।

বাংলা চলচ্চিত্রের চার মহানায়ক নায়করাজ রাজ্জাক, ফারুক, ইলিয়াস কাঞ্চন এবং সালমান শাহ অভিনীত চলচ্চিত্রের গান দিয়ে হবে স্টুডিও রাউন্ডের প্রতিযোগিতা। এখানেও দর্শকদের ভোট এবং বিচারকদের ভোটে সেরা ২০ জনকে বাছাই করা হবে।

মালয়েশিয়ায় ‘এমএম লাইভ-সিঙ্গারস অব লাইফ’ এর সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন আয়োজক সংস্থা প্রধান নির্বাহী জাফর ফিরোজ
মালয়েশিয়ায় ‘এমএম লাইভ-সিঙ্গারস অব লাইফ’ এর সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন আয়োজক সংস্থা প্রধান নির্বাহী জাফর ফিরোজ

সেমিফাইনালে সেরা ২০ জন থেকে ১০ জনকে বাছাই করে ফাইনাল রাউন্ডের জন্য মনোনীত করা হবে। সেরা ১০ জন নিয়ে হবে গ্রুমিং রাউন্ড। গ্রুমিং রাউন্ড শেষে সেরা ১০ জন অংশ নিবে ফাইনাল রাউন্ডে। এই রাউন্ডে বিচারকদের রায় ও দর্শকদের অনলাইন ভোটে নির্বাচন করা হবে ‘এমএম লাইভ সিঙ্গারস অব লাইফ’ এর সেরা তিন।

পুরস্কার হিসেবে সেরা ৩ জনের জন্য রয়েছে ১০ হাজার মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত (বাংলাদেশি ২ লাখ টাকা) সমমানের পুরস্কার । এছাড়া তিনজনকে নিয়ে মৌলিক মিউজিক ভিডিও বানানো হবে। আর সেরা ২০ জনকে ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট ও আকর্ষণীয় গিফট দেয়া হবে।

ইভেন্টের মূল পর্বে বিচারক হিসেবে থাক-বাংলা গানের জীবন্ত কিংবদন্তি গায়ক খুরশিদ আলম, জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, বিশিষ্ট সঙ্গীত পরিচালক মইনুল ইসলাম খান, খ্যাতিমান গায়িকা কনক চাঁপা, সঙ্গীত পরিচালক সজীব দাশ এবং হালের ক্রেজ ঐশী।

দর্শকরা গ্র্যান্ড ফিনালেসহ সকল পর্ব এমএম অ্যাপসে দেখতে পারবেন এবং ভোটে অংশ নিতে পারবেন। পুরস্কার থেকে বঞ্চিত হবেন না অনলাইন দর্শক এবং ভোটে অংশগ্রহণকারীরা। দর্শকদের রয়েছে ২০ হাজার রিঙ্গিত সমমানের পুরস্কার। আর অনলাইন ভোটে অংশ নেয়া দর্শকদের মধ্য থেকে লটারির মাধ্যমে তিনজনকে ১০ হাজার রিঙ্গিত (বাংলাদেশি ২ লাখ টাকা) সমমানের আকর্ষণীয় পুরস্কার প্রদান করা হবে।

আয়োজকরা আশা করছেন পুরস্কারের পরিমাণটা গ্র্যান্ড ফিনালে পর্যন্ত আরও কয়েক গুণ বাড়তে পারে। মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশ ছাড়াও পৃথিবীর যে কোনো প্রান্ত থেকে দর্শকরা এই ভোটে অংশ নিতে পারবেন বলে জানান আয়োজকরা।

বর্ণাঢ্য গ্র্যান্ড ফিনালে মালয়েশিয়ান শিল্পীদের সাথে কয়েকটি দেশের শিল্পীরাও বাংলা গান পরিবেশন করবেন বলে আয়োজকরা আশা করছেন। জাফর ফিরোজের কথা, সজীব দাসের সুর আর আরজে রাজুর কণ্ঠে তৈরি হয়েছে প্রতিযোগিতার টাইটেল সং।

প্রবাসে এমন বড় আয়োজন সফল করা জন্য মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশন, বাংলাদেশ কমিউনিটি, মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এবং সকল প্রবাসীদের সহযােগিতা চেয়েছেন আয়োজকরা।

[প্রিয় পাঠক, আকাশযাত্রা প্রবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিকসহ কমিউনিটির নানান খবর, সংগঠনের খবর, ভ্রমণ, আড্ডা,আনন্দ-বেদনার গল্প, ছোট ছোট অনুভূতি, দেশের স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। লেখা ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়]

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...