চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সঙ্গে বৈঠকে প্রতিশ্রুতি

0

দেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি রেমিট্যান্সযোদ্ধা প্রবাসীদের নানা সমস্যা সংসদে তুলে ধরার মাধ্যমে নিরসনে সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিলেন চট্টগ্রাম ৮ আসনের সংসদ সদস্য ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ।

সম্প্রতি নগরের লালখান বাজারে বাসভবনে তার সঙ্গে চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের প্রতিনিধি দলের সৌজন্য বৈঠকে এ প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সভাপতি ও এনআরবি-সিআইপি এসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী সিআইপির নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে ছিলেন সমিতির  সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুর রহমান সিআইপি, অর্থ সম্পাদক নাসির মাহমুদ, সহ সম্পাদক বাবলু চৌধুরী, সদস্য তৌহিদুল আলম সিআইপি। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কাতার বাংলাদেশি কমিউনিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নুর মোহাম্মদ।

বৈঠককালে সমিতির নেতৃবৃন্দ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃক প্রবাসীর মরদেহ বিনামূল্যে বহন পুনরায় চালু, ওয়েজ আর্নার্স বন্ডে বিনিয়োগের উর্ধ্বসীমা এক কোটি টাকা নির্ধারণের সরকারি সিদ্ধান্ত পুর্নবিবেচনাসহ করোনাকালের প্রবাসীদের নানা দূর্ভোগের কথা  তুলে ধরে সংসদ সদস্যের সহায়তা কামনা করেন। পাশাপাশি প্রবাসীদের কল্যাণে চট্টগ্রামভিত্তিক কিছু উদ্যোগের সুপারিশসহ  ৭ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি অধ্যুষিত ওমানে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম চালুর ব্যাপারে তার সমর্থন ও সহায়তা চান তারা।

সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী সিআইপি বলেন, করোনাকালীন প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে সদ্য সমাপ্ত ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রবাসীরা  ১ লাখ ৫৪ হাজার ৭৪২ কোটি টাকা দেশে পাঠিয়েছেন, যা বাংলাদেশের ইতিহাসে একক বছরে আহরিত সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স। এমনকি চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) প্রবাসীরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ৬৭ হাজার ৬০ কোটি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। তারপরও সাম্প্রতিককালে কিছু  সিদ্ধান্ত তাদের মধ্যে চরম হতাশার জন্ম দিয়েছে।  

মোসলেম উদ্দিন আহমদ বলেন,  দেশের জিডিপিতে বড় ধরণের অবদান রেখে চলা রেমিট্যান্স হয়ে উঠেছে দেশের উন্নয়ন ও মুদ্রার রিজার্ভ স্ফীতির উল্লেখযোগ্য অংশীদার। দেশের অর্থনীতিকে সজীব ও জাগ্রত রাখতে এবং প্রবাসীদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞতাভরে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি নির্দেশনায় গত ১২ বছরে অনেক যুগোপযোগী ও যুগান্তকারী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এছাড়া করোনাকালে অসহায় প্রবাসীদের খাদ্য সহায়তা, ঋণ সুবিধা দিয়ে পাশে থাকার মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। 

করােনাকালে উদভূত নানা সমস্যাসহ বিরাজমান বিষয়গুলো সংসদে উত্থাপনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর দৃষ্টিতে আনা হলে সুফল আসবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।  এ লক্ষ্যে জাতীয় সংসদে জোরালো ভূমিকা রাখা ছাড়াও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থাগুলোর প্রতি ব্যক্তিগতভাবে আবেদন রাখার মাধ্যমে রেমিট্যান্সযোদ্ধা প্রবাসীদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। 

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।