সোয়ান নদীর তীরে গড়ে ওঠা পার্থ

0

পার্থ। দক্ষিণ-পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থিত পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া রাজ্যের রাজধানী ও নগর। সোয়ান নদীর তীরে এ নগর গড়ে উঠেছে। প্রায় ১.৯৭ মিলিয়ন অধিবাসী এ নগরে বসবাস করেন।সিডনি, মেলবোর্ন ও ব্রিসবেনের পর এটি অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থ বৃহত্তম নগর।

গুরুত্বপূর্ণ রেলসড়ক ব্যবস্থাপনার প্রেক্ষিতে বাণিজ্যিক, উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে পরিগণিত হয়েছে। ধাতু ও ধাতব পদার্থ, পরিশোধিত পেট্রোলিয়ামজাত পণ্য, প্রক্রিয়াজাতকরণ খাদ্য, রাবার, ভবনের মালামালসহ মুদ্রিত পণ্যসামগ্রীর জন্য পার্থ বিখ্যাত।সোয়ান নদীর তীরে গড়ে ওঠা পার্থ 1

১৮২৯ সালে ক্যাপ্টেন জেমস স্টার্লিং এ নগরের গোড়াপত্তন করেন। সোয়ান রিভার কলোনি নামে প্রশাসনিক কেন্দ্র গড়ে তোলেন তিনি। তৎকালীন ব্রিটিশ যুদ্ধ ও উপনিবেশ সংক্রান্ত্র মন্ত্রী স্যার জর্জ মুরের পরামর্শক্রমে স্কটল্যান্ডের পার্থ এলাকার নাম অনুসারে পার্থের নামকরণ করা হয়। ১৮৫৬ সালে পার্থ নগরের মর্যাদা লাভ করে। ঊনবিংশ শতকের শেষদিকে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় স্বর্ণপ্রাপ্তির প্রেক্ষিতে নগরের জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পেতে থাকে। এরফলে অস্ট্রেলিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় উপনিবেশ থেকে দলে দলে লোকের সমাগত হতে থাকে এখানে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার জড়িত থাকার প্রেক্ষিতে প্রশান্ত মহাসাগরীয় রণাঙ্গনে সাবমেরিন ঘাঁটি পরিচালিত হতো। যুদ্ধের পর ব্রিটেন, গ্রিস, ইতালি এবং যুগোস্লাভিয়া থেকে অভিবাসীদের আগমনে জনসংখ্যা বৃদ্ধি এর প্রধান কারণ হয়ে দাঁড়ায়। সাদা বালুকাময় সমুদ্র সৈকতের জন্য এ নগরের সুখ্যাতি রয়েছে। তন্মধ্যে কোটস্লো ও স্কারবোরা সমুদ্র সৈকত অন্যতম। সাঁতার কাঁটার জন্য এ সৈকতগুলো বেশ আদর্শ। রোটনেস্ট আইল্যান্ডে পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। সেখানে ছোট্ট প্রজাতির কুক্কা নামে স্তন্যপায়ী প্রাণী বসবাস করে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন