পর্তুগালে বাংলাদেশিদের ঈদুল আযহা উদযাপন

0

করোনার মহামারি কারনে পর্তুগাল সরকারের চলমান স্বাস্থ্য বিধিনিষেধ মেনে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য মধ্য দিয়ে রাজধানী লিসবন ও বাণিজ্যিক বন্দর নগরী শহর পোর্তো, পর্যটন ও কৃষি সমৃদ্ধ শহর আলগ্রাব, স্থাপত্য নগরী কোইমব্রায়, কৃষি শহর ওডিমিরায় পালিত হল ঈদুল আযহা।

তবে বাংলাদেশি অধ্যুষিত পর্তুগালের লিসবনের মাতৃ মনিজ পার্কের মাঠে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় গতবারের ন্যয়ে এবারো খোলা মাঠে ঈদুল আযহার নামাজের জামাত আয়োজনের অনুমতি দেয় নাই প্রশাসন।

তবে সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে লিসবনের বাঙ্গালী অধ্যসিতো মুরারিয়া এলাকায় বায়তুল মোকারম জামে মসজিদ (বড় মসজিদ) সকাল ৭টায় প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। মাওলানা অধ্যাপক আবু সাইদ প্রথম নামাজ পরিচালনা করেন মাওলানা আলা উদ্দিন। এরপর এই মসজিদে ধারাবাহিকভাবে আরও ৫টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত।

বাঙ্গালী অধ্যুষিত মাতৃ মনিজ জামে মসজিদে সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে শুরু হয়ে মোট ১০টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। মাওলানা আলা উদ্দিন প্রথম নামাজ পরিচালনা করেন।

বায়তুল মোকাররম জামে মসজিদ এবং মাতৃ মনিজ জামে মসজিদে মোট ১৬ টি ঈদ জামাতে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ পর্তুগালে অবস্থারত বিভিন্ন দেশের প্রায় তিন হাজার মুসল্লি অংশ নেয়।

এছাড়াও লিসবন সেন্ট্রাল জামে মসজিদে ৩ টি জামাত, অদিভেলাস আয়েশা সিদ্দিকা (রাঃ) জামে মসজিদে ৩টি ঈদের জামাত, সাকাভেমে ২টি, ওডিমিরার বাংলাদেশ কমিউনিটির আয়োজনে ১টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

বন্দরনগরী ও বাণিজ্যিক শহর পোর্তোর পোর্তোর বাঙ্গালি অধ্যুষিত রুয়া দে লউরেইরোর হযরত হামযা (রা.) জামে মসজিদে ২টি, হযরত বেলাল (রা.) জামে মসজিদে ৩টি ঈদ জামাত এবং কাসকাইস বাংলাদেশি জামে মসজিদ, মিনদেলো পাইকারি বাজার মসজিদ, কোইমব্রা জামে মসজিদে একটি করে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

পর্তুগালে ঈদুল আযহা উদযাপনে বাংলাদেশিরা
পর্তুগালে ঈদুল আযহা উদযাপনে বাংলাদেশিরা

পর্তুগালের বিভিন্ন শহরের আশপাশের বিভিন্ন মসজিদেও উল্লেখযোগ্য বিপুল সংখ্যক মুসলমান ঈদ উৎসব পালন করেন। প্রতিটি নামাজ শেষে বিশ্ব মুসলিম উন্মাহ এবং করোনার এই মহামারি থেকে রক্ষার জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়।

নামাজগুলোতে অংশ নেয় পর্তুগাল বাংলাদেশ কমিনিটির বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশির এবং বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

এ সময় প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশাপাশি আফ্রিকা এবং পশ্চিমা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অন্যান্য কমিউনিটির ধর্মাবলম্বী মুসলমানদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে ঈদের জামাতগুলোতে।

ঈদ জামাতগুলোতে রং-বেরঙের বাহারি পোশাক গায়ে ঈদের নামাজ আদায় করেন বিভিন্ন দেশের মানুষ। নামাজ শেষে মহামারির মাঝেও মাতৃ মনিজ এলাকায় সৃষ্টি হয় এক উৎসব মুখর পরিবেশ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন