নতুন উড়োজাহাজে নতুন রুট চালু করবে ইউএস বাংলা

বহরে যুক্ত হবে আরও ৪ টি র‍্যান্ড নিউ এটিআর ৭২-৬০০

0

বহরে সদ্য যুক্ত হওয়া ৬টি ব্র‍্যান্ড নিউ এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজ দিয়ে ঢাকা থেকে দেশের প্রধান গন্তব্যগুলোর পাশাপাশি একেবারে নতুন রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। এজন্য চলতি বছরেই আরও চারটি ব্র‍্যান্ড নিউ এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজ যুক্ত হবে ইউএস-বাংলার বহরে।

রবিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা-সিলেট-ঢাকা রুটে ব্র‍্যান্ড নিউ এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজ দিয়ে প্রথমবারের মতো ফ্লাইট পরিচালনা শুরু উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মলেন এই ঘোষণা দিয়ে পরিকল্পনা ও প্রত্যাশার কথা জানান বেসরকারি বিমানসংস্থাটির শীর্ষ কর্মকর্তারা।

ঢাকা-সিলেট-ঢাকা রুটে নতুন উড়োজাহাজের উদ্বোধনী ফ্লাইটের অতিথি যাত্রী ছিলেন গণমাধ্যমকর্মীরা। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সিলেটের এম এ জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাতায়াত করে করে ফ্লাইটটি।

বিমানবন্দরে পর্যটন মোটেলে সংবাদ সম্মলেন নতুন উড়োজাহাজের প্রযুক্তি, নিরাপত্তা ও ব্যবহার এবং পরিকল্পনা নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়। ব্রিফ করেন সংস্থাটির উপদেষ্টা শিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বহরে সদ্য যোগ হওয়া বিশ্বের সর্বোচ্চ নিরাপদ, আরামদায়ক ও অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ৬টি ব্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজ দিয়ে আকাশপথে যাত্রীদের সর্বোচ্চ নিরাপদ ও আরামদায়ক সেবা দিতে চায় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস।

পাশাপাশি আকাশপথে দেশের সব কয়টি আভ্যন্তরীণ গন্তব্যে ঢাকাকেন্দ্রিক যাতায়াতে বাড়তি খরচ ও ভোগান্তি কমাতে চায় ইউ-এস বাংলা। এ জন্য নতুন উড়োজাহাজ দিয়ে চট্টগ্রাম-সিলেট-চট্টগ্রাম, সিলেট-কক্সবাজার-সিলেট, চট্টগ্রাম-যশোর-চট্টগ্রাম, যশোর-কক্সবাজার-যশোর এবং সিলেট-যশোর-সিলেট রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।

বর্তমানে ইউএস বাংলা অভ্যন্তরীণ রুটে ঢাকা থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী, বরিশাল নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এছাড়া আন্তর্জাতিক রুট কলকাতা, চেন্নাই, মাস্কাট, দোহা, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক ও গুয়াংজুতে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে।

সংবাদ সম্মলনে বক্ব্য রাখছেন, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উপদেষ্টা ক্যাপ্টেন সিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ
সংবাদ সম্মলনে বক্ব্য রাখছেন, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উপদেষ্টা ক্যাপ্টেন সিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ

সংবাদ সম্মেলনে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উপদেষ্টা ক্যাপ্টেন সিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ বলেন,’বর্তমানে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে পঞ্চম প্রজন্মের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ছয়টি ব্র্যান্ড নিউ এটিআর এয়ারক্রাফট রয়েছে। চলতি বছরে এই সংখ্যা ১০-এ গিয়ে দাঁড়াবে। এই প্রযুক্তির উড়োজাহাজ দেশীয় কোনো এয়ারলাইন্সের বহরে নেই।’

তিনি বলেন,’ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ আকাশপথে বাংলাদেশকে হাতের মুঠোয় আনার স্বপ্ন নিয়ে কাজ করছেন। আমাদের ব্যবসা পরিচালনার প্রধান দুইটি উদ্দেশ্যের মধ্যে একটি হল- সারা দেশের মধ্যে কানেক্টিভিটি বাড়ানো, আরেকটি হচ্ছে- সবাই যেন এয়ারে ট্রাভেল করতে পারে।’

‘যাত্রীদের নিরাপত্তা ও আনন্দময় ভ্রমণই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। এছাড়া ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে যাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা ও নিরাপত্তা প্রদান করে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সকে একটি অন্যতম শীর্ষ দেশীয় এবং আঞ্চলিক এয়ারলাইন্স হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে দৃঢ় প্রত্যয় আমাদের’, তিনি যোগ করেন।

এটিআর ৭২-৬০০ এর সেফটি ও বৈশিষ্ট্য নিয়ে প্রেজেন্টেশনে ইউএস বাংলার চিফ অব ট্রেনিং সিনিয়র ক্যাপ্টেন মশিউল আজম। তিনি বলেন,’ইউএস বাংলার ১০ জন পাইলটকে বিদেশি প্রশিক্ষক দ্বারা প্রশিক্ষণ করানো হয়েছে’।

চিফ অব ফ্লাইট সেফটি ক্যাপ্টেন শামস বলেন, ‘আমাদের প্রতিষ্ঠানের সবচেয়ে বেশি প্রায়োরিটি হচ্ছে সেফটি। একটি ডমেস্টিক বিমানবন্দরে ১০ হাজার ফিটের রানওয়ে থাকাটা স্ট্যান্ডার্ড। বাংলাদেশের রানওয়ে সাড়ে ৬ হাজার ফিট। তবে নতুন এই এটিআর এয়ারক্রাফট বাংলাদেশের এই ছোট রানওয়ের মধ্যেও ওঠানামায় সক্ষম।’

তিনি বলেন, ‘এছাড়াও কোনো এয়ারক্রাফটে যদি ইমার্জেন্সি সিচুয়েশন হয় তাহলে পাইলটকে ম্যানুয়েলি বই দেখে সিচ্যুয়েশন হ্যান্ডেল করতে হয়। তার যতই নিয়ম-কানুন জানা থাকুক, তাকে বই দেখতে হবেই। তবে নতুন এই এয়ারক্রাফটের ইমার্জেন্সি হলে কী করতে হবে ককপিটের মনিটরের বামে সেই কমান্ড চলে আসবে।’

সংবাদ সম্মেলনে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট অপারেশন পরিচালক মনিরুল হক জোয়ারদার ও মহাব্যবস্থাপক (পাবলিক রিলেশন্স) মো. কামরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

১৭ জুলাই ২০১৪ দু’টি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ইউএস-বাংলা ঢাকা থেকে যশোরে উদ্বোধনী ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে ইউএস-বাংলার বিমান বহরে মোট তেরোটি এয়ারক্রাফট রয়েছে, যার মধ্যে ৪টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, তিনটি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ ও ছয়টি ব্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০। যা বাংলাদেশে বেসরকারী এয়ারলাইন্সের মধ্যে সর্বোচ্চ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।