জুলাইয়ের শুরুতে বাংলাদেশে ফ্লাইট চালুর প্রস্তুতি নিচ্ছে ওমানের সালামএয়ার

0

জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে ওমান থেকে বাংলাদেশ রুটে ফ্লাইট চলাচলের প্রস্তুতি নিচ্ছে সালামএয়ার। এর মধ্যেই অনুমতি আবেদনের প্রেক্ষিতে দুই দেশের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা থেকে প্রস্তুতি নেওয়ার সম্মতি পেয়েছে ওমানের স্বল্প খরচের বিমানসংস্থাটি। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন সিদ্ধান্ত এখনও পায়নি সংস্থাটি। জানা গেছে, বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) জুলাইয়ে শুরু থেকে সালামএয়ারকে ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি নিতে বলেছে ।

বাংলাদেশে সালামএয়ারের কান্ট্রি ম্যানেজার এম সাহাবুদ্দিন আকাশযাত্রাকে এ তথ্য জানিয়ে বলেন, বেবিচকের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রাথমিক পর্যায়ে আমরা মাস্কাট-ঢাকা-মাস্কাট রুটে ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং সে হিসেবে বেচিকের কাছে আগের মতোই দৈনিক একটি ফ্লাইটের অনুমতি চেয়েছি। সে লক্ষ্য নিয়েই ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আশা করি আনুষ্ঠানিক অনুমতি পেয়ে যাবো। তবে সবকিছু নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতি আর দুই সরকারের সিদ্ধান্তের ওপরই।

আনুষ্ঠানিক অনুমতি পেলে কবে নাগাদ পরিচালনার শুরু করা যাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে জুলাইয়ের ১ থেকে ৫ তারিখের মধ্যেই আমরা ফ্লাই পরিচালনা আশা রাখছি। সালামএয়ার কর্তৃপক্ষ সে হিসেবেই প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বিষয়টি শুধু বাংলাদেশের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার ওপরই নির্ভর করছে না। কারণ করোনা পরিস্থিতিতে ওমানে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল আবার শুরুর কোন সিদ্ধান্ত এখন ঘোষণা করা হয়নি। করোনা প্রাদূর্ভাবের কারণে মার্চ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে এবং আগামি ৬ জুলাই পর্যন্ত নোটাম দেওয়া আছে। জুনের শুরুতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া কথা শোনা গেলেও তা আর হয়নি। পর্যটন প্রদেশ দোফার এবং শিল্পাঞ্চল ডুকুমে লকডাউন জারিতে বিলম্বিত করা হয়েছে বলে গত ১১ জুন সুপ্রিম কমিটির সভা শেষ সংবাদিকদের জানিয়েছিলেন পরিবহনমন্ত্রী ড. আহমেদ বিন মোহাম্মদ আল ফুতাইসি।

তবে দুদিনে ওমান বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে ঘোষণা করেছে যে, করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে পুরোদমে কার্যক্রম চালুতে প্রস্তুত করা হয়েছে দেশটি বিমানবন্দরগুলাে। এ জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষাসহ সকল ধরণের পরিকল্পনা আর আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা হয়েছে বলে। এছাড়া দেশীয় বিমানসংস্থাকেগুলোকে ফ্লাইট আবার পরিচালনার প্রস্তুতি নেওয়ার জন্যও বলা হয়েছে, এমনটি জানা গেছে সংম্লিষ্ট সূত্রে।

এতে করে চলতি সপ্তাহে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা আসতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। সুপ্রিম কমিটির আগামী সভাতেই বিষয়টি পরিস্কার ধারনা পাওয়া যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে। তাদের আশা আগামী ৬ জুলাইয়ে আগেই নিষেজ্ঞাধা (নোটাম) তুলে নেওয়া হবে।

করোনা পরিস্থিতিতে গত একমাসে ওমান থেকে দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রবাসীদের জন্য ভারত ও পাকিস্তানে একাধিক ফ্লাইট পরিচালনা করা হয়। তবে বাংলাদেশিদের জন্য এমন কোন উদ্যোগ এখনও নেওয়া হয়নি। এ নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভ রয়েছে।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) সূত্রে জানা গেছে, সালাম এয়ার ছাড়াও তুরস্কের তার্কিশ এয়ারলাইনস, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সারজাহভিত্তিক এয়ার অ্যারাবিয়া ও দুবাইভিত্তিক ফ্লাই দুবাই এবং মালয়েশিয়ার মালিন্দো এয়ার ঢাকায় ফ্লাইট পরিচালনা করতে আগ্রহ দেখিয়ে আবেদন করেছে। এর মধ্যে তার্কিশ এয়ারলাইনস, সালাম এয়ার ও এয়ার অ্যারাবিয়াকে ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি নিতে বলেছে বেবিচক। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে কাউকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়নি।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...