জর্ডানে কারফিউতেও মুদি দোকান ও মিনিমার্কেট খোলা থাকবে

0

জর্ডানে জনগণের সুবিধার্থে কারফিউয়ের মধ্যেও মুদি দোকান ও মিনিমার্কেটগুলি খোলা রাখার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

বুধবার (২৫ মার্চ) থেকে শুরু করে পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি দেওয়া না পর্যন্ত সকাল দশটা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পযন্ত সারাদেশের মুদি দোকান ও মিনিমার্কেট খোলা থাকবে।

মঙ্গলবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী ওমর রাজ্জাজ জাতীয় নিরাপত্তা ও সংকট ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রে এক সংবাদ সম্মেলনের এই ঘোষণা দেন। মিনিমার্কেট গুলি খোলা থাকলেও নাগরিকদের সমাবেশের ভয়ে জন্য সুপার মার্কেটগুলি খোলা হবে না বলে তিনি জানান।

রাজ্জাজ জোর দিয়ে বলেন,প্রত্যেক পরিবার বা বাড়ির কেবল একজনকে মুদি দোকান বা মিনি মার্কেটে যেতে হবে এবং কোনও শিশু বা বয়স্ক লোককে পাঠানো যাবে না বা দোকানে ঢুকতে দেওয়া হবে না। কেবলমাত্র ১৬ থেকে ৬০ বছর বয়সের লোকেরা দোকানে যেতে পারবেন।”

“জিনিষপত্র কিনতে নাগরিকদের দোকান-মিনিমার্কেটগুলোতে পায়ে হেঁটে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে এবং একে অপরের মধ্যে দেড় মিটার জায়গা রেখে যেতে হবে। কেবল অনুমোদিত যানবাহন রাস্তায় চলাচল করতে দেওয়া হবে,”প্রধানমন্ত্রী যোগ করেন।

তিনি নিশ্চিত করেন,”বেসিক ফুড স্টাফ স্টোর, সবজি ও ফলের দোকান, বেকারি, ফার্মেসি এবং পানির দোকানগুলি প্রয়োজনীয় উপকরণ এবং পণ্য সংগ্রহের পরে বুধবারই চালু হয়ে যাবে।”

প্রধানমন্ত্রী হুশিয়ারি দিয়ে বলেন,”যদি আমরা দোকানগুলিতে উপচে পড়া ভিড়ের দৃশ্য দেখি, কোনও লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটে তবে সেগুলি বন্ধ হয়ে যাবে। হয় লোকেরা ব্যবস্থা গ্রহণের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হবে অথবা আমরা দোকানগুলি বন্ধ করে দিবো। ”

“পরিবারের প্রয়োজনীয় খাবার যেমন খাদ্য, রুটি, পানি, ওষধ এবং জ্বালানী সুরক্ষিত করার জন্য আপনার মধ্যে উদ্বেগ এবং উত্তেজনার পরিস্থিতি আমি পুরোপুরি বুঝতে পারি। নতুন ব্যবস্থাটি আপনাদের মৌলিক চাহিদা পূরণের সুযোগ করে দিবে বলে আমার বিশ্বাস,” রাজ্জাজ সংবাদ সম্মেলনে বলেন।

রাজ্জাজ বলেছিলেন যে, “কারফিউ এমন একটি পরিস্থিতি যা আমরা এর আগে প্রত্যক্ষ করি নি এবং এর মধ্যে বড় ধরনের নেতিবাচক ও মনস্তাত্ত্বিক সংঘাত রয়েছে। এই বর্তমান পর্যায়ে ভাইরাসের মোকাবেলায় সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন।”

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...