কুয়েত প্রবাসী কমানোর পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর মত

0

জনসংখ্যার কাঠামোর বৈষম্য নিরসনে একটি “বড় চ্যালেঞ্জ” মোকাবেলা করছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত। দেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকের কম প্রবাসী হওয়া উচিত, যা এখন মোট জনসংখ্যার ৩০ শতাংশ (কুয়েতি) এবং ৭০ শতাংশ (প্রবাসী) অনুপাতে রয়েছে- এমন অভিমত দেশটির প্রধানমন্ত্রীর।

বুধবার কুয়েতের জাতীয় সংবাদপত্রগুলোর সম্পাদকদের সাথে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসান খালেদ আল-হামাদ আল-সাবাহ এই অভিমত ব্যক্ত করেন।

তিনি জানান, কুয়েতের জনসংখ্যা প্রায় ৪৮ লাখ (৪.৮ মিলিয়ন), যার মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখ কুয়েতি এবং প্রায় ৩৪ লাখ নন-কুয়েত বা প্রবাসী।

প্রধানমন্ত্রীর মতে, “আদর্শ জনসংখ্যার কাঠামো কুয়েতি ৭০ শতাংশ এবং অ-কুয়েতি (প্রবাসী) ৩০ শতাংশ হওয়া উচিত, তাই ভবিষ্যতে আমাদের সামনে একটি বড় চ্যালেঞ্জ রয়েছে যা জনসংখ্যার বৈষম্যকে মোকাবেলা করা।”

তিনি বলেন, এখানে সাড়ে ৭ লাখ প্রবাসী গৃহকর্মী আছেন, যারা কুয়েতের জনসংখ্যার অর্ধেকের সমান।

“জনসংখ্যার কাঠামোর সমাধানের জন্য সময় প্রয়োজন এবং ভবিষ্যতে জনসংখ্যার জন্য একটি চূড়ান্ত সমন্বয় পৌঁছানো পর্যন্ত এটি পর্যায়ক্রমে বিভক্ত করা উচিত”, প্রধানমন্ত্রীর পর্যবেক্ষণ।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “আমাদের নির্ভর করতে হবে আমাদের ছেলে মেয়েদের সব পেশায় কাজ করার জন্য, যেমনটি আমাদের পূর্বপুরুষরা সকল চাকরিতে কাজ করে কুয়েত তৈরিতে অবদান রেখেছিলেন।”

সংসদের সাথে সহযোগিতার মাধমে এ বিষয়ে ফলপ্রসূ সমাধানে পৌঁছানোর জন্য সরকার আগ্রহী।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...