করোনায় মন্দা, ৪০০ কর্মীকে ছাঁটাই করছে হংকং এয়ারলাইন্স

0

চীনে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে ব্যবসায় মন্দা ঠেকাতে ৪০০ কর্মীকে ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হংকংয়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিমান সংস্থা হংকং এয়ারলাইন্স ।

শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সংস্থাটির ১০% জনবল হ্রাসের সিদ্ধান্তের তথ্য দিয়ে প্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

“বৈশ্বিক ইস্যুটির ক্রমবর্ধমান প্রকৃতির সাথে অনিশ্চয়তা বাড়ার কারণে দুর্বল ভ্রমণ চাহিদা গ্রীষ্ম মরসুম পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে এবং আমাদের চলমান থাকার জন্য আরও পদক্ষেপ নেওয়া দরকার,” আন্তর্জাতিক বার্তা রয়টার্স জানিয়েছেন বিমানসংস্থার একজন মুখপাত্র ।

“হংকং এয়ারলাইন্সের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত এর চেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জের সময় আর কখনও হয়নি। এই সিদ্ধান্ত কঠিন তবে এয়ারলাইনকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে,” তিনি যোগ করেন।

হংকংয়ের বিমান সংস্থাগুলির জন্য গত বছরটি ছিল অত্যন্ত মারাত্মক। প্রথমত, হংকংয়ের বিক্ষোভের ফলে ব্যাপক বিঘ্ন ঘটেছিল, বিমানসংস্থাগুলোকে হাজার হাজার ফ্লাইট বাতিল করতে বাধ্য করে। এখন করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকানোর চেষ্টার কারণে বিমান সংস্থাটিকে আরও হাজার হাজার বিমান বাতিল করতে বাধ্য করেছে।

হংকং এয়ারলাইন্সের এয়ারবাস এ ৩৫০-৯০০ উড়োজাহাজ
হংকং এয়ারলাইন্সের এয়ারবাস এ ৩৫০-৯০০ উড়োজাহাজ

চীন এবং আশেপাশের অঞ্চলে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় গত কয়েক সপ্তাহ ধরে হংকং এয়ারলাইন্সের ব্যবসাকে মারাত্মকভাবে প্রভাবিত করেছে এবং দেখে মনে হচ্ছে পরের মাসেও নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হবে না।

হংকং এয়ারলাইনস অন্যতম মালিক চীনের বৃহৎশিল্পগোষ্টী এইচএনএ গ্রুপ বলেছে, ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত এটি প্রতিদিনের কার্যক্রমকে ৮২ টি সেক্টর থেকে ৩০ এ নামিয়ে আনা হবে।

এটি আরও বলেছে, হংকং-ভিত্তিক গ্রাউন্ড কর্মীদের প্রতি মাসে ন্যূনতম দুই সপ্তাহ বিনা বেতনে ছুটি নিতে বলা হবে কিংবা ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩০ শে জুনের মধ্যে সপ্তাহে তিন দিন কাজ করতে বলা হবে।

বৃহত্তর প্রতিদ্বন্দ্বী হংকংয়ের জাতীয় বিমানসংস্থা ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারওয়েজ (০২৯৩.এইচকে) করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ইতিমধ্যেই কর্মীদের বিনা বেতনে তিন সপ্তাহের ছুটি নিতে বলেছে।

আগামী মার্চ থেকে জুনের মধ্যে এই অবৈতনিক ছুটি সংস্থাটির পাইলট, কেবিনক্রুসহ ২৭ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারির সবাইকে পালাক্রমে ভোগ করতে হবে ।

গতবছেরর মাঝামাঝি থেকে চীনা-নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ব্যাপক, কখনও কখনও হিংসাত্মক, সরকারবিরোধী বিক্ষোভের কারণে ক্যাথে এবং হংকং এয়ারলাইনস উভয়েরই চাহিদা দ্রুত হ্রাস পাচ্ছে।

হংকং এয়ারলাইনস অন্যান্য আর্থিক সঙ্কটের সাথেও লড়াই করে আসছে। ডিসেম্বর মাসে নগরের বিমান পরিবহন নিয়ামক দ্বারা লাইসেন্স স্থগিতের আশংখার মুখোমুখি হওয়ায় এটি অর্থ সংগ্রহের পরিকল্পনা আঁকতে বাধ্য হয়েছিল।

চীনের করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বের বেশিরভাগ বিমানসংস্থা বিভিন্ন ধরণের ভ্রমণ বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। এই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার জন্য হাজার হাজার বাতিল ফ্লাইট এবং বিমানসংস্থাগুলোর জন্য বড় ক্ষয়ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...