করোনায় ৮০ শতাংশ ভ্রমণ প্যাকেজ বাতিল, ভর্তুকি দাবি টোয়াবের

0

করোনা আতংকে প্রধান পর্যটন গন্তব্যগুলোতে ট্যুর প্যাকেজ ও টিকিট বাতিল করেছে প্রায় ৮০ শতাংশ বাংলাদেশি ভ্রমণকারী। একইভাবে বাংলাদেশে আসার পূর্বনির্ধারিত ভ্রমণও বাতিল করছে অনেক বিদেশি পর্যটক। এতে বড় ক্ষতির মুখে পড়েছে দেশিয় ট্যুর অপারেটরা। পুষিয়ে নিতে সরকারের কাছে ভর্তুকি দাবি করে বিশেষ তহবিল গঠনের আহবান জানিয়েছে ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব)।

সোমবার (১৬ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে টোয়াব আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ দাবি জানানো হয়। শুরুতেই জানানো হয়, করোনাভাইরাসের প্রকোপে ঢাকায় ৩-৫ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জতিক পর্যটন মেলা বাতিল করেছে টোয়াব।

সংবাদ সম্মেলনে টোয়াব সভাপতি রাফেউজ্জামান বলেন, আউটবাউন্ড ও ইনবাউন্ড পর্যটনের একটি বড় বাজার চীন, জাপান, সিঙ্গাপুর, ভারত ও ইতালি। করোনাভাইরাসের কারণে উভয় পর্যটনেই বড় ধাক্কা লেগেছে। এর ওপর অন্যান্য গন্তব্যেও নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। আমাদের ট্যুর অপারেটররা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

তিনি বলেন, ভাইরাস আতঙ্কে নেপাল, ভুটান, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ডসহ এশিয়ার প্রধান পর্যটন গন্তব্যগুলোতে ট্যুর প্যাকেজ ও টিকিট বাতিল করেছে প্রায় ৮০ শতাংশ বাংলাদেশি ভ্রমণকারী। একইভাবে বাংলাদেশে আসার পূর্বনির্ধারিত ভ্রমণও বাতিল করছে অনেক বিদেশি পর্যটক। এতে ক্ষতির মুখে পড়েছে টোয়াব-এর সদস্যরা। বাংলাদেশ করোনাভাইরাস মুক্ত কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে বুলেটিনগুলো আমাদের দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে সারা বিশ্বে পাঠানো দরকার।

তিরি আরো বলেন, টোয়াব আয়োজিত বাংলাদেশের বৃহত্তম পর্যটন মেলা ১০ম শেয়ারট্রিপ বাংলাদেশ ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ার (বিটিটিএফ) আগামী ৩-৫ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সকল প্রস্তুতি থাকা সত্বেও যথাসময়ে মেলা অনুষ্ঠান আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না।

সংবাদ সম্মেলনে করোনাভাইরাসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পর্যটন শিল্পকে বাঁচাতে টোয়াবের পক্ষ থেকে সহজ সুবিধায় ও কম খরচে ভিসা দেয়া, বন্দর ও বিমানবন্দরগুলোতে অপ্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ শিথিল করা, পর্যটকদের ওপর আরোপিত ট্যাক্স কমানো, ভ্রমণ স্থানগুলো প্রচারে বরাদ্দ বাড়ানো, বিমানের টিকেটের ট্যাক্স কমানো, সরকারের পক্ষ থেকে ট্যুর অপারেটরদের ইনসেনটিভ দেওয়া এবং সহজ শর্তে ঋণ দেওয়া।

করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত ৩০ শতাংশ কর্মী চাকরি হারাতে পারে বলে সংবাদ সম্মেলনে আশঙ্কা প্রকাশ করে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ বলেন, টোয়াবের দাবিগুলোর বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজদ, অর্থ পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান মাসুম, মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিকেশন্স পরিচালক সাহেদ উল্লাহ ও মেলা পরিচালক আনেয়ার হোসেন প্রমুখ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...