ওমানে করোনা-আক্রান্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৯ জনে, শীর্ষে মাস্কাট

0

ওমানে করোনাভাইরাস (কোভিড -১৯) সংক্রমণের ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে এবং আক্রান্তের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। শুরু থেকেই নিয়ন্ত্র্রিত থাকলেও গত কয়েকদিনে তা হটাৎ করে বাড়তে শুরু করেছে। দুদিনই বেড়েছে ৩৩ জন। এর মধ্যে বুধবার আরও ১৫ জন নতুন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্তের কথা নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে হয়েছে।

এ নিয়ে দেশটিতে ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯ জনে দাঁড়িয়েছে এবং এর মধ্যে ১৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলে মন্ত্রণালয়ে সবশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

মন্ত্রণালয় জানায়, নতুন পাওয়া ১৫ জনই ওমানের নাগরিক। এর মধ্যে ৭ জন আগের সংক্রামিত রোগীদের সংস্পর্শে এসে আক্রান্ত হন, ৭ জন যুক্তরাজ্য,স্পেন ও আমেরিকা ভ্রমণের করে দেশে ফিরে আসা এবং ১ জন পর্যবেক্ষেণ ছিলেন।

এদিকে বুধবার ওমান নিউজ এজেন্সির (ওএনএ) প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওমানে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী রেকর্ড হয়েছে রাজধানী মাস্কাটে। এ পর্যন্ত শনাক্ত হওয়া ৯৯ জনের মধ্যে ৭০ জনই মাস্কাটের বাসিন্দা। এর মধ্যে ১৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এরপর আল দাখিলিয়া প্রদেশে ১০ জন আক্রান্ত হয়েছে, যার মধ্যে দুজন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। উত্তর আল বাতনা প্রদেশে ১০ এবং দক্ষিণ আল বাতনায় ৪ জন নিশ্চিত হয়েছে। এ ছাড়া আল ধিরাহ ও দোফার প্রদেশে দুজন করে এবং দক্ষিণ আল শারকিয়ায় ১ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত নিশ্চিত হয়েছে।

সংক্রামক রোগ ধরা পড়েছে এমন ব্যক্তিরা স্বাস্থ্য বিভাগে রিপোর্ট না করলে, তাদের কারাদণ্ড ভোগ এবং জরিমানা দিতে হবে। ওমানের সুলতান হাইথাম বিন তারেক সংক্রামক রোগ আইনের কিছু বিধান সংশোধন করে একটি ডিক্রি জারি করেন। তাতে রয়েছে: “যে কেউ সংক্রামক রোগের বিষয়ে রিপোর্ট করতে ব্যর্থ হয়, তাকে কমপক্ষে ৩ মাস থেকে সর্বোচ্চ ১ বছর কারাভোগ এবং কমপক্ষে এক হাজার ওমানি রিয়াল থেকে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ওমানি রিয়াল জরিমানা গুনতে হবে।

এ দিকে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় গঠিত সুপ্রিম কমিটির মঙ্গলবারের বৈঠকে প্রতিটি ওয়ালিয়াতে করোনায় মৃতদের মরদেহ ধুয়ে দেওয়ার জন্য নিরাপদ স্থান বরাদ্দ করতে এবং সংক্রমণের ঝুঁকি নিরসনের জন্য প্রতিটি দেহকে সুরক্ষিত করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে।

ওমান টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে ডাঃ আহমেদ বিন মোহাম্মদ আল সাদী বলেছেন,“মরদেহ ধোয়া এমনভাবে করা উচিত যাতে ধৌতকারীরা এই রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে পারেন। মরদেহ বাড়ির ভিতরে ধুয়ে ফেলার ওমানিদের ঐতিহ্য রয়েছে, তবে এই ব্যতিক্রমী পরিস্থিতিতে সম্প্রদায়ের সুরক্ষার জন্য আমাদের তা করা থেকে বিরত থাকতে হবে।”

করোনাভাইরাস (কোভিড -১৯) রোগের বিস্তার রোধে চলমান প্রচেষ্টা অবদানের জন্য শীঘ্রই একটি এসএমএস পরিষেবা চালু হবে বলে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন,”আমাদের সবার এমন আচরণ করা উচিত যেন সে ভাইরাসটি বহন করে চলেছে এবং যেন আমরা যার সাথে যোগাযোগ করি তারা ভাইরাস বহন করে চলেছে।”

“আমরা সাধারণ পরিস্থিতিতে যা করতে অভ্যস্ত না তা করতে অভ্যস্ত হতে হবে” এমন মন্তব্য করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন যে, ওমানের নাগরিক এবং প্রবাসীরা বাড়িতেই থাকবেন এবং নির্দেশনাটি মেনে চলবেন এবং যোগ করেন, “মহামারীর যে কখন শেষ হতে পারে তার ভবিষ্যদ্বাণী আমরা করতে পারি না।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাইয়্যেদ হামাউদ বিন ফয়সাল আল বুসাইদির সভাপতিত্বে সুপ্রিম কমিটির বৈঠকে, ২৯ শে মার্চ রবিবার দুপুর ১২ টা থেকে ওমানে অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক সকল ফ্লাইট স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে, কার্গো বিমান এবং মুসান্দাম প্রদেশের ফ্লাইটগুলি এ নিষেধাজ্ঞা থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া ওমানের আশেপাশের অনেক হটবেডগুলিতে সদ্য আবিষ্কৃত করোনাভাইরাস মামলার কারণে, সুপ্রিম কমিটি “মেডিকেল রেসপন্স এবং জনস্বাস্থ্য” খাত এবং “আশ্রয় ও ত্রাণ” খাতকে সক্রিয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কমিটি মহামারীটির সমাধানের লক্ষ্যে সুলতানাতের সশস্ত্র বাহিনী, রয়্যাল ওমান পুলিশ (আরওপি) এবং অন্যান্য সুরক্ষা পরিষেবাদি দ্বারা জাতীয় পদক্ষেপে সহায়তা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রাখার জন্য বলা হয়েছে।

অন্য সিদ্ধান্তে কমিটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে বিদেশে অবস্থানত ওমানি নাগরিক এবং শিক্ষার্থীদের স্বদেশে ফিরিয়ে আনতে এবং তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কােয়ারেন্টিন প্রদান এবং ভাইরাসটি যাতে ছড়িয়ে না পড়ে তা নিশ্চিতে করোনা শনাক্ত করার জন্য আধুনিক এবং প্রযুক্তিগত পদ্ধতিগুলো ব্যবহার করার নির্দেশ দেয়।

সুপ্রিম কমিটির নির্দেশনার পরে ওমানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যারা করোনাভাইরাস (COVID-19) মহামারীর প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় প্রয়াসে অবদান রাখতে চায় তাদের জন্য একটি বিশেষ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলেছে।

আঞ্চলিক পৌরসভা ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে যে, সুপ্রিম কমিটির সিদ্ধান্তে নিষিদ্ধ দোকানগুলির তালিকায় রান্নার গ্যাস বিক্রয় কেন্দ্র, পশুর খাবারের দোকান, বীজ, সার ও কীটনাশক বিক্রি করার দোকান এবং জ্বালানী স্টেশন অন্তর্ভুক্ত নয়। অর্থ্যাৎ এই দোকানগুলো খোলা থাকবে।

ওমানের পর্যটন মন্ত্রণালয় দেশের সকল হোটেল কর্তৃপক্ষকে জাতীয় দায়িত্ব পালনে অবদান রাখার জন্য বিনামূল্যে রুম সরবরাহের জন্য অনুরোধ করেছে। করোনভাইরাসকে ছড়িয়ে যাওয়া নিয়ন্ত্রণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে রুমগুলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। জরুরী প্রয়োজনে হোটেলগুলোকে কোরায়েন্টিন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হতে পারে জানা গেছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় (এমওএইচ) সৈকতে বেড়ানো থেকে বিরত থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, কারণ সৈকতের ধারে সমবেত হওয়া COVID-19 এর বর্তমান পরিস্থিতিতে সংক্রমণকে আকর্ষণ করতে পারে।

মঙ্গলবার পরিবহন মন্ত্রণালয় জারি করা এক বিবৃতিতে বলেছে, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত চালক বাদে কেবল দুজন যাত্রী ট্যাক্সিতে ভ্রমণ করতে পারবেন। এ ছাড়া মন্ত্রণালয় পরবর্তী নোটিশ না হওয়া পর্যন্ত পর্যটন নৌকা ও ভ্রমণ বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। সিদ্ধান্ত লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে মন্ত্রণারয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

সুপ্রিম কমিটির নির্দেশনার পরে ওমান এয়ার মঙ্গলবার জানিয়েছে যে, তারা ২৯ শে মার্চ থেকে মুসান্দাম প্রদেশ ছাড়া সুলতানাতে আসা এবং যাওয়া সকল যাত্রীবাহী ফ্লাইট স্থগিত করবে।

আগের খবর :
ওমানে সংকটগ্রস্থদের সহায়তায় এগিয়ে আসুন:বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...