ওমানের খাসাবে বাংলাদেশ দূতাবাসের কনস্যুলার সেবা

0

ওমানের মুসান্দাম প্রদেশের খাসাবে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে দুদিন ব্যাপী কনস্যুলার সেবা প্রদান করা হয়। ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর আয়োজিত কনস্যুলার ক্যাম্পেরনেতৃত্ব দেন ওমানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমান। সঙ্গে ছিলেন দূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম) হুমায়ূন কবির, প্রথম সচিব (পাসপোর্ট) রওশন আরা পলি এবং গাল্ফ ওভারসিজ এক্সচেঞ্জের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইফতেখার চৌধুরী ।

রাষ্ট্রদূত খাসাবের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সমস্যা ও অভিযোগ অত্যন্ত আন্তরিকতা ও ধৈর্য সহকারে শুনেন এবং তা নিরসনের জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেন।

প্রবাসীদের উদ্যেশ্যে রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমান বলেন, দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হয় এমন কোন কাজ থেকে আমাদের সবাইকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে, আমরা এসেছি রুজিরোজগারের জন্য, তাই এদেশের যাবতীয় নিয়ম শৃঙ্খলা মেনে নিজেদের সম্মান ধরে রেখে আমাদেরকে তা করতে হবে।

তিনি ওমানের সাথে বাংলাদেশের ব্যবসায়িক কার্যক্রম বাড়াতে সকলকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে ও যথাযথ পরামর্শ দিতে অনুরোধ করেন।

রাষ্ট্রদূত এখন থেকে কমপক্ষে প্রতি তিন মাসে একবার হলেও খাসাবে কনসুলার সেবা আয়োজনের ঘোষণা দেন।

দূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম) হুমায়ুন কবির প্রবাসীদের জন্য ওয়েজ আর্নাজ স্কিমের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন এবং অতি সত্বর সকল প্রবাসীকে এই সেবা গ্রহণেরতাগাদা দেন।

তিনি বলেন, ওয়েজ আর্নাজ রেজিষ্ট্রেশনে খরচ হবে মাত্র ১৭ রিয়াল, যা কোন এক সময় ৭০ লাখ টাকার কাজ দিবে।

গাল্ফ ওভারসিজ এক্সচেঞ্জের সিইও ইফতেখার চৌধুরী তার বক্তব্যে প্রবাসীদেরকে বৈধ চ্যানেলে টাকা পাঠানোর গুরুত্ব তুলে ধরে, সবাইকে স্ব স্ব নামে একাউন্ট করার পরামর্শ দেন।

তিনি প্রবাসীদেরকে দেশের যে কোন ব্যাংকে একাউন্ট করার জন্য গাল্ফ এক্সেঞ্জের পক্ষ থেকে সকল সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

কনস্যুলার ক্যাস্পে প্রথম সচিব (পাসপোর্ট) রওশন আরা পলি প্রবাসীদের পাসপোর্ট রি ইস্যুর ফাইল গ্রহণ করেন এবং কিছু পাসপোর্ট ডেলিভারি দেন। কাউন্সেলর হুমায়ুন কবির নতুন করে ইস্যু হওয়া ভিসা সত্যায়ন করেন ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন