এয়ার ইন্ডিয়ার ত্রাণবাহী ফ্লাইটকে পথ দেখল পাকিস্তান!

'তোমাদের জন্য আমরা গর্বিত' : পাক এটিসি

0

বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের পর থেকেই ভারতের জন্য নিজেদের আকাশসীমা বন্ধ করে দিয়েছিল পাকিস্তান। এমনকি ভারতের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ভিভিআইপি ফ্লাইটকেও নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি ইসলামাবাদ।

তবে এবার করোনায় চিরশত্রু পাকিস্তানকে অন্যরুপে পেল ভারত, বৈরিতার মাঝেও সহায়তা। ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাওয়া এয়ার ইন্ডিয়ার ফ্লাইটকে নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতিই শুধু দেয়নি, উল্টে দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছনোর জন্য দেখিয়ে দিল শর্ট-কাট রুট।

‘তোমাদের জন্য আমরা গর্বিত’, পাকিস্তান এয়ার কন্ট্রোল (এটিসি) অপারেটরের মুখে এমনই কথা শোনা গেল এই সময় ।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২ এপ্রিল মুম্বই থেকে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে যাচ্ছিল এয়ার ইন্ডিয়ার দু’টি বিশেষ বিমান। ফ্রাঙ্কফুর্ট যাওয়ার জন্য পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহার করলে ঘুরপথে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।

এয়ার ইন্ডিয়ার অফিসার জানিয়েছেন, এই দু’টি বিমানে প্রচুর পরিমাণে চিকিৎসার সরঞ্জাম ও অন্যান্য রসদ ছিল যা করোনা-আক্রান্ত কয়েকটি দেশে পৌঁছে দেওয়ার কথা ছিল। তাছাড়া ভারতে আটকে পড়া ইউরোপীয় নাগরিকদেরও ওই দুটি বিমানে চাপিয়েই তাদের দেশে পৌঁছে দিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

এয়ার ইন্ডিয়া জানিয়েছে, পাকিস্তানের আকাশসীমায় পৌঁছে প্রথমে তাদের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। পাক এটিসি থেকে প্রথমে কোনও সাড়া না পেলেও, কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা উত্তর দেয়। প্রথমে এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটদের সৌজন্য বার্তা ও পরে জানানো হয় দেশে দেশে ভারতের এই ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টা দেখে তারা গর্বিত।

ইরানের এয়ার কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিতেও সাহায্য করে পাকিস্তান। শুধু তাই নয় দ্রুত পৌঁছবার জন্য করাচির কাছ ঘেঁষে শর্ট-কাট রুটও দেখিয়ে দেয় তারা।

এয়ার ইন্ডিয়ার এক অফিসার বলেছেন, ‘যে পথ পাড়ি দিতে আমাদের ৯ ঘণ্টা ১৫ মিনিট সময় লাগত, সেই পথই যেতে সাড়ে আট ঘণ্টা সময় লাগে। পাক এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে ধন্যবাদ।’

বিমান বাহিনী ছাড়াও দেশে দেশে করোনা মোকাবেলার রসদ পৌঁছে দিতে এয়ার ইন্ডিয়ার ১৮টি চাটার্ড বিমানকে কাজে লাগানো হয়েছে। চীনে বিপুল পরিমাণে চিকিৎসার সরঞ্জাম ও সে দেশে আটকে পড়া ভারতীয়দের উদ্ধার করে এনেছে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান।

ভারতে আটকে পড়া জার্মানি, ফ্রান্স, ইরান ও কানাডার নাগরিকদের নিজেদের দেশে ফিরিয়েও নিয়ে গেছে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান। আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত দিল্লি থেকে সাংঘাইতে চিকিৎসার সরঞ্জাম পৌঁছে দিতে যাতায়াত করবে এয়ার ইন্ডিয়ার কার্গো ফ্লাইট।

উল্লেখ্য, ভারত নিজেও করোনায় ভয়াল থাবায় বিপর্যস্ত। দেশটিতে এরই মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৩ হাজার ৫৮৮ জন। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯৯ জনের।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।