এনআরবিসি ব্যাংকের পরিচালকের পদ থেকে বাদ এমপি পাপুল

0

কুয়েতে মানব ও অবৈধ মুদ্রা পাচারের অভিযোগে বিচারের মূখোমুখি বাংলাদেশের সাংসদ শহিদ ইসলাম পাপুলকে এনআরবি কমার্শিয়াল (এনআরবিসি) ব্যাংকের পরিচালক পদে থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ব্যাংকটির ভাইস চেয়ারম্যান ও এনআরবিসি ব্যাংক সিকিউরিটিজের চেয়ারম্যান পদ থেকে বাদ পড়েছেন তিনি।

প্রবাসীদের উদ্যোগে গঠিত এ ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদের শনিবারের সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে দৈনিক প্রথম আলোর প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে। পাপুলকে পরিচালনা পর্ষদ থেকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান তমাল পারভেজ পত্রিকাটিকে বলেন, ‘আমরা চাই ব্যাংক নিয়ে কোনো প্রশ্ন না উঠুক। ফৌজদারি অভিযোগ ওঠায় সাংসদ শহিদ ইসলামকে বাদ দেওয়া হয়েছে।’

প্রথম আলো জানায়, ২০১৩ সালে নতুন ব্যাংক অনুমোদন দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই সময়ে প্রবাসীদের উদ্যোগে গঠিত এনআরবিসি কমার্শিয়াল ব্যাংক অনুমোদন পায়। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ফরাছত আলী ছিলেন ব্যাংকটির প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান। ওই সময়ে তিনি বিভিন্ন দেশের বসবাসরত প্রবাসী ব্যবসায়ীদের ব্যাংকটির পরিচালক করেন। এর মধ্যে কুয়েত প্রবাসী শহিদ ইসলাম ব্যাংকটির পরিচালক হন। আর বিভিন্ন অনিয়মের কারণে ফরাছত আলী ব্যাংকটি থেকে বাদ পড়লে তমাল পারভেজ ও শহিদ ইসলাম ব্যাংকটির নিয়ন্ত্রণ নেন।

ব্যাংকটিতে শহিদ ইসলামের নামে ২ কোটি ২১ লাখ শেয়ার রয়েছে। আর তাঁর স্ত্রী সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ সেলিনা ইসলামের নামে রয়েছে ১ কোটি ৯ লাখ শেয়ার। প্রতিটি শেয়ারের দাম ১০ টাকা হলে ব্যাংকটিতে তাদের বিনিয়োগ প্রায় ৩৩ কোটি টাকা। তবে এর বাইরেও তাঁর বড় অঙ্কের শেয়ার থাকার অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মগুলোর নিবন্ধকের কার্যালয় (আরজেএসসি)তথ্য অনুযায়ী, সম্প্রতি সাবেক পরিচালক সৈয়দ মুনসেফ আলীর কাছ থেকে ২০ লাখ, উদ্যোক্তা কানিজ ফারহানা রশিদ থেকে ৮৪ হাজার ৮০০, মইনুদ্দিন ইরতেজ সেকান্দার থেকে ১ লাখ ৮৪ হাজার ৯৫০ ও স্বামী শহিদ ইসলাম থেকে ১০ লাখ শেয়ার কিনেছেন সাংসদ সেলিনা ইসলাম। ব্যাংকটিতে শহিদ ইসলামের শেয়ার বেশি হওয়ায় প্রভাবশালী পরিচালক ছিলেন। নিজের স্ত্রীকেও ব্যাংকটির পরিচালক করতে কয়েক দফায় উদ্যোগ নিয়েছিলেন তিনি।

শহিদ ইসলামকে গত বৃহস্পতিবার কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এরই মধ্যে দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল ধারার আল-আসাউয়ি তাঁকে ঘুষ দেওয়া, মানব ও অবৈধ মুদ্রা পাচার এবং রেসিডেন্ট পারমিট বিক্রির অভিযোগে ২১ দিন কারাগারে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। এরপরই এনআরবিসি ব্যাংকের পরিচালকেরা তাকে বাদ দেওয়ার উদ্যোগ নেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পরিচালনা পর্ষদের সভায় তাঁকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

করোনাময় বিশ্ব : কেমন আছেন পর্তুগালপ্রবাসী বাংলাদেশিরা

করোনাময় বিশ্ব : কেমন আছেন পর্তুগালপ্রবাসী বাংলাদেশিরাঅতিথিরানা তসলিম উদ্দিন, সভাপতি, বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার, পর্তুগালএনামুল হক, প্রবাসী উদ্যোক্তারনি মোহাম্মদ, আহবায়ক, বাংলা প্রেস ক্লাব, পর্তুগালসঞ্চালনায় : আহমেদ তোফায়েল, সাংবাদিক ও উপস্থাপক২৮ জুন, রোববার – পর্তুগাল সময় : বিকেল ৫ টা, ইউরোপ সময় : সন্ধ্যা ৬ টা, বাংলাদেশ সময় : রাত ১০ টা

Posted by AkashJatra on Sunday, June 28, 2020

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...