ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে প্রবাসীদের অবস্থান ধর্মঘট

0

দুর্নীতি-দালাল মুক্ত দূতাবাসের দাবিতে রোমের শীর্ষ স্থানীয় কমিউনিটি নেতারা দূতাবাসের সামনে ২৭ জুলাই সোমবার সকাল থেকে দুপুর অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচী এখনো চলমান রয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে ইতালির রোমে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও দালাল সিন্ডিকেটকে সহায়তা করার অভিযোগ উঠেছে। দূতাবাসের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সাথে যোগসাজশ করে ইতালী আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল এক নেতা দীর্ঘদিন ধরে দূতাবাসে দালালি ও দুর্নীতি করে আসছেন বলে কমিউনিটি নেতারা অভিযোগ করেছেন।

অবস্থান কর্মসূচীতে লিখিত ঘোষণায় প্রবাসীদের উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন দাবি তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে ইতালি সরকার অবৈধদের বৈধতা পেতে ঘোষণার শর্ত অনুযায়ী বাংলাদেশিদের পাসপোর্ট সমস্যা আগামী ১০ জুলাই এর মধ্যে সমাধান, গত ৮ জুলাই ইতালির রোম থেকে ফেরত পাঠানো ১২৫ এবং মিলানো থেকে ৪৫ জন বাংলাদেশিকে অবিলম্বে ফিরিয়ে আনা এবং দূতাবাসের সেবা পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফোন করলেও পাওয়া যায় না এর সুষ্ঠু সমাধান, অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়া টোকেনের মাধ্যমে সেবা প্রদান, অবিলম্বে দূতাবাসে দালালদের দৌরাত্ন বন্ধ করা, চিহ্নিত পাসপোর্ট দালালদের দূতাবাসে প্রবেশে নিষিদ্ধ ঘোষণা, দূতাবাসে কর্মরত দালালদের সহযোগী কর্মচারীদের প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের পক্ষে দালাল নির্মূল ও দূতাবাস দুর্নীতি মুক্তকরণ কমিটির আহ্বায়ক ইতালির কমিউনিটির প্রবীণ ব্যক্তিত্ব আফতাব বেপারী বলেন, “বর্তমান রাষ্ট্রদূত রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে রাষ্ট্রদূতের ছত্রচ্ছায়ায় ইতালী আওয়ামী লীগের এক নেতা বিভিন্নভাবে দালালি করে আসছেন। রাষ্ট্রদূত সব জেনেও দূতাবাসে অবাধে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন ওই নেতাকে।”

তিনি ‘দূতাবাসকে দালালের আম্বরখানায় পরিণত করা হয়েছে’ অভিযোগ করে বলেন, এটি এক নজিরবিহীন ইতিহাস আমাদের জন্য। এর আগে ও পরে অনেক রাষ্ট্রদূত দেখেছি, এমন দালালি এবং কোনো প্রবাসীদের হয়রানি কখনো করতে দেখিনি।

এ সব অভিযোগের বিষয়ে জানতে রোমে দূতাবাসে একাধিক বার ফোন দেয়া হলেও কাউকে এই ব্যপারে কথা বলার জন্য পাওয়া যায়নি।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...