ইতালিতে বাংলাদেশিদের ঈদুল ফিতর উদযাপন

0
Travelion – Mobile

ইতালিতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হয়েছে। সোমবার (২মে) রাজধানী রোমসহ ইতালির বিভিন্ন স্থানে ঈদ উদযাপন করা হয়। রোমের বাংলাদেশি ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র পিয়াচ্ছা ভিত্তোরিও,লারগো প্রেনেসতে,কাসিলিনা ভাঙা দেওয়ালের মাঠ,মারানেল্লার লালন পার্কসহ একাদিক স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

তরপিনাতারাস্থ কাসিলিনা ভাঙা দেয়ালের খোলা মাঠে,পরপর চারটি জামাত অনুষ্ঠিত হয় প্রথম সকাল ৭টা ৩০ মিনিট দ্বিতীয় ৮টা ১৫ মিনিটে এভাবে পরপর চারটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। একইভাবে লারগো প্রেনেসতে সকাল ৭টা ৩০ মিনিট প্রথম জামাত হয় পরে আরও কয়েকটি জামাতের আয়োজন করা হয়। মারানেল্লার লালন পার্কে সকাল ৮টায় প্রথম জামাতের ব্যবস্থা করা হয়েছে এভাবে পরপর আরও তিনটি জামাতের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও সেন্তেশেল্লে, মনতেভেরদে,আলবানো লাসসিয়ালে,ভেনিসসহ ইতালির বিভিন্ন জায়গায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা ঈদের জামাত আদায় করেছেন।

এদিকে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শামীম আহসান প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাথে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটের জামতে ভিত্তোরিও চত্ত্বরের ঈদগাহে নামাজ আদায় করেন। পরে প্রবাসীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন তিনি। রাষ্ট্রদূত,সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন,আমি পিয়াজা ভিট্টোরিয়া পার্কে নামাজ পড়েছি। সেখানে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশিদের সাথে ঈদের জামাতে যোগ দিতে পেরে আনন্দিত। সবার মঙ্গল কামনায় আবারও ঈদের শুভেচ্ছা জানান রাষ্ট্রদূত।

ইতালির বিভিন্ন স্থানে ঈদুল ফিতর উদযাপিত
ইতালির বিভিন্ন স্থানে ঈদুল ফিতর উদযাপিত

বিভিন্ন জায়গায় ঈদের নামাজের ইমামতি করেন তাদের মধ্যে কয়েকন তারপিনাত্তারা টিএমসি জামে মসজিদের ইমাম হুমায়ুন রশিদ রাজী,ভিয়া মারানেল্লা জামে মসজিদের মাওলানা রুহুল আমিন,কুবা মসজিদের ইমাম মাহফুজ,মসজিদের রোমের ইমাম মাওলানা মিজানুর রহমানসহ আরও অনেকে।

amar lab – mobile

প্রসঙ্গত,এ বছর করোনার প্রাদুর্ভাব কমে যাওয়ায় এবং ৩১ মার্চ ইতালির জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ায় প্রবাসীরা খুব আনন্দের সাথে ঈদের জামাতে শরীক হন। বিধিনিষেধ না থাকায় বিভিন্ন স্থানে মুসল্লিদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। প্রতিটি জামতে ছিল উপচে পড়া মুসল্লিদের ভিড়।

কোন কোন স্থানে মুসল্লিদের উপস্থিতি বেশি হওয়ায় মসজিদ ব্যবস্থাপনা কমিটি অধিক জামাতের ব্যবস্থা করেন। পাশাপাশি মহিলা মুসল্লিদের আলাদা ব্যবস্থা থাকায় তারা স্বাচ্ছন্দ্যে জামাতে শরীক হন। বিভিন্ন সময়ের তুলনায় অনেক উপস্থিতি হয়েছে বলেও মসজিদ কর্তৃপক্ষ জানান।

ইতালির পর্যটনকেন্দ্র জলকন্যা ভেনিসের ঈদ প্রসঙ্গে জানতে এক প্রশ্নের জবাবে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসাইন বলেন, সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বাইতুল মামুন মসজিদেে পরপর তিনটি জামাত হয় দ্বিতীয় জামাতে আমি ঈদের নামাজ আদায় করি।

তিনি বলেন,এ বছরের ঈদ সত্যি চমৎকার ভাবে উদযাপন করা হয়েছে। কারণ গেল বছরে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারনে কোন আনন্দই করা যায়নি। সেই তুলনায় এবারের ঈদে উৎসবমুখর পরিবেশ ছিল। অনেক মুসল্লিদের উপস্থিতি থাকায় আনন্দের সাথে এ ঈদটি উদযাপন করা হয়। আমরা ভেনিস প্রবাসী বাংলাদেশিরা এত আনন্দঘন পরিবেশে ঈদ উদযাপন করতে পেরে আল্লার কাছে শুকরিয়া আদায় করছি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন