ইতালিতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২ জন হল

0

ইতালির কোনাভাইরাসে আরও একজনে মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ইউরোপীয় দেশটিতে দু’জন রোগী কোভিড -১৯ -করোনাভাইরাসে মারা গেল। এর আগে একজনের মৃত্যুের কথা জানিয়েছিল খবর দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রী।

এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইউরোপের নাগরিকদের মধ্যেও এটাই প্রথম মৃত্যুর ঘটনা। গত সপ্তাহান্তে ফ্রান্স এই ভাইরাস থেকে ইউরোপে প্রথম মৃত্যুর খবর দেয় -প্যারিসে আসা একজন চীনা পর্যটক মারা যায়।

ইতালিয়ান বার্তা সংস্থা আনসা জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় উত্তর-পূর্ব ইতালির একটি হাসপাতালে প্রথম মারা যান ৭৮ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত রাজমিস্ত্রি । কয়েক ঘন্টা পরে লম্বার্ডি শহরে মারা যাওয়া দ্বিতীয় রোগী হলেন একজন মহিলা, যার পরিচয় এখনও প্রকাশিত হয়নি।

এদিকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে একসঙ্গে অনেক করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পরে ইতালির উত্তরাঞ্চলীয় ১০টি শহরে এক সপ্তাহের জন্য জনসমাগমস্থল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্কুল, পাবলিক বিল্ডিং, রেস্তোঁরা ও কফির দোকান বন্ধ করার ।

তিন সন্তানের জনক অবসরপ্রাপ্ত রাজমিস্ত্রি অ্যাড্রিয়ানো ট্রেভিসান উত্তর ইতালির পাদুয়ার একটি হাসপাতালে মারা যান, যেখানে ভাইরাস দ্বারা সংক্রামিত এক ব্যক্তি ভর্তি ছিল। দশ দিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন রবীণ ব্যক্তি ট্রেভিসান।

ইতালিতে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যু, দশটি শহর বন্ধ ঘোষণা
ইতালিতে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যু, দশটি শহর বন্ধ ঘোষণা

শুক্রবার ইতালির স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরানজা এই তথ্য নিশ্চিত করেন।
বার্তা সংস্থা আনসা জানিয়েছে, গতকাল উত্তর ইতালীয় অঞ্চলের লোমবার্ডিতে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় করোনভাইরাসে আক্রান্ত ৬ জন ইতারিয়ান শনাক্ত হয়, যা দেশটিতে করোনা সংক্রমণ হওয়ার প্রথম ঘটনা ছিল ।

লোমবার্ডির কাউন্সিলর গিউলিও গ্যালেরা এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন,’আমরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছয় জন রোগী পেয়েছি। এসব রোগীর সংস্পর্শে আসা কয়েকশো মানুষ সংক্রমণ হয়েছে কিনা তা এখন পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

ইতালির কোডোগনোর একজন ৩৮ বছর বয়সী লোক থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে বলে জানা গেছে, যিনি জানুয়ারিতে চীন থেকে ফিরে আসা এক বন্ধুর কাছ থেকে সংক্রামিত হয়েছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। পাঁচজন চিকিৎসক ও নার্স এবং বেশ কয়েকজন রোগী কোডোগনোর হাসপাতালে সংক্রামিত হয়েছিল যেখানে তার চিকিত্সা করা হয়েছিল।

ঐ ব্যক্তি ফ্লুর লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে গিয়েছিলেন তবে তাকে বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। তিনি একদিন পরে আবার হাসপাতালে যান এবং পরীক্ষায় তার শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীন ফেরত বন্ধুটির সঙ্গে দেখা হওয়ার পরে, তিনি কর্মস্থলে কাজ করেছিলেন, দুটি দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন, একটি ফুটবল দলে খেলেছিলেন, কমপক্ষে তিনটি রেস্তোঁরাতে রাতের খাবার এবং ব্যবসায়িক সভা করেছিলেন।

তালির উত্তরাঞ্চলীয় ১০টি শহরে এক সপ্তাহের জন্য জনসমাগমস্থল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
তালির উত্তরাঞ্চলীয় ১০টি শহরে এক সপ্তাহের জন্য জনসমাগমস্থল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ইতালির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কয়েকশো মানুষকে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে এবং ভাইরাসের জন্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। ৩৮ বছর বয়েসী ঐ ব্যক্তির ১৫০ জন সহকর্মি এবং কোডোগনা হাসপাতালের ৭০ জন মেডিক্যাল স্টাফকে পরীক্ষা করা হয়েছে।

উত্তর ইতালির ১০টি শহরে এক সপ্তাহের জন্য জনসমাগমস্থল বন্ধ করা ছাড়াও ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের জনগণকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। করোনাভারাস সংক্রামক রোধের স্বার্থে এক সপ্তাহের জন্য যাবতীয় উৎসব পালন কিংবা উপাসনালয় বা খেলাধূলায় অংশ নেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

এদিকে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপে কন্টি শুক্রবার ব্রাসেলসে ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের পরে সাংবাদিকদের বলেন যে, তার দেশ এই প্রাদুর্ভাব পরিচালনা করতে প্রস্তুত রয়েছে।

কন্টি বললেন,”সমস্ত কিছুই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, লোকজনকে উদ্বিগ্ন হওয়ার দরকার নেই।”

আগের খবর:
ইতালিতে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যু, দশটি শহর বন্ধ ঘোষণা

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...