আমিরাতে বুধবার খুলছে মসজিদসহ সকল উপাসনালয়

0

সংযুক্ত আরব আমিরাতে করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯) প্রাদূর্ভাব প্রতিরোধে দীর্ঘ তিনমাস পর আবার খুলে দেওয়া হচ্ছে মসজিদসহ সকল উপাসনালয়।

স্বাস্থবিধি মেনে বুধবার (১ জুলাই) থেকে পুনরায় খুলবে সকল আমিরাত রাজ্যের মসজিদ ও অন্য উপাসনলায়ের দ্বার। মসজিদগুলোতে আপাতত ওয়াক্তি নামাজ আদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে, স্থগিত থাকবে শুক্রবারের জুমার নামাজ আদায়।

‘দ্য জেনারেল অথরিট অব ইসলামিক এ্যাফেয়ার্স এ্যান্ড এনডাওমেন্টসের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মসজিদ ও অন্য উপাসনালয়গুলো জনসাধারনের জন্য আগামীকাল (বুধবার) উন্মুক্ত করে হবে। তবে ৩০ শতাংশ উপস্থিত হতে পারবে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত জুমার নামাজ বন্ধ থাকবে। মসজিদ চালুর আগে ইমাম, মুয়াজ্জিন ও মসজিদের সকল কর্মকর্তাদের কোভিড-১৯ টেস্ট করা হয়েছে।”

সকল মসজিদে করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশিকার পোস্টার লাগানো হয়েছে যা সময় মুসল্লিদের অবশ্যই মেনে চলতে হবে।

মসজিদে নামাজ আদায়ের বাধ্যতামূলক বিধি
প্রতি ২টা সারির মধ্যে ১টা সারি ফাঁক রাখতে হবে।
প্রতি ২ মুসল্লি মধ্যে ১.৫ মিটার দূরত্ব থাকতে হবে।
মুসল্লিদের মাস্ক ও গ্লাভস পরা বাধ্যতামূলক।
মুসল্লিদের নিজস্ব জায়নামাজ (প্রার্থনা মাদুর) মসজিদে আনতে হবে।
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সালাম দিতে হবে, হাত মেলানো যাবে না।
নামাজের আগে বা পরে মুসল্লিরা একত্রিত হওয়া যাবে না।
১ম জামাত শেষে ২য় জামাতে করা যাবে না।
জামাত শেষ হওয়ার মাত্র মসজিদ ত্যাগ করতে হবে।
অসুস্থ ব্যক্তি ও কোভিড -১৯ রোগীর সংস্পর্শে আছেন তাদেরকে মসজিদে প্রবেশ নিষেধ।
আজানের সময় থেকে ২০ মিনিট পর্যন্ত মসজিদ চালু রাখা যাবে। এর মধ্যে জামাত শেষ করতে হবে।
আজানের পরপরই জামাত চালু হবে।
প্রতিটি জামাতের পরেই মাসজিদ বন্ধ হয়ে যাবে।
সব ধরণের বিতরণ কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।
পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত মহিলাদের নামাজের স্থান বন্ধ থাকবে।
ওযুখানা বা ওয়াশরুম বন্ধ থাকবে।

বয়স সীমাবদ্ধতা
১২ বছরের নিচে এবং ৬০ বছরের বেশি বয়স্ক ব্যক্তিরা মসজিদ এ প্রবেশ নিষেধ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...