আমিরাতে চালু হচ্ছে ৫ বছরের মাল্টিপল এন্ট্রি টুরিস্ট ভিসা

রিমোট ওয়ার্ক ভিসা অনুমোদন

0

সব দেশের নাগরিকদের জন্য ৫ বছর মেয়াদী মাল্টিপল এন্ট্রি টুরিস্ট ভিসা চালু করতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। দেশটির মন্ত্রিসভা এই ভিসার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। পাশাপাশি সকল খাতে বিশ্বজুড়ে বিশেষজ্ঞ এবং প্রতিভা আকৃষ্ট করতে বিদেশী কর্মীদের জন্য এক বছর মেয়াদী নতুন রিমোট ওয়ার্ক ভিসা প্রকল্পও অনুমোদন করেছে আমিরাত মন্ত্রিসভা।

রবিবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী এবং দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত মন্ত্রীসভার বৈঠকে আমিরাতকে নিরাপদ ও আদর্শ ‘কাজ এবং পর্যটন’ গন্তব্য করার একাধিক উদ্যোগের মধ্যে এই নতুন আইন বা ব্যবস্থা অন্যতম।

এক টুইট বার্তায় শেখ মোহাম্মদ মন্ত্রীসভার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে বলেন,“আমরা বিশ্বব্যাপী আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা বাড়াতে এবং আমাদের নাগরিক ও অভিবাসীদের জীবনের সর্বোত্তম মান প্রদানের সুস্পষ্ট উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছি। আমাদের উন্নয়নের যাত্রা স্থায়ী।

তিনি আরও যোগ করেছেন, “বৈশ্বিক অর্থনৈতিক রাজধানী হিসাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের অবস্থানকে আরও শক্তিশালী করতে এবং পরিষেবা প্রদানের জন্য বিশ্বের অন্যতম সেরা গন্তব্য হিসাবে গড়ে তোলার জন্য আমাদের সরকার নমনীয় কর্মসূচি এবং উদ্যোগের বিকাশ অব্যাহত রেখেছে, এবং নাগরিক ও প্রবাসীদের জন্য জীবনের সেরা মানের অফার দিচ্ছে।

গালফ নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, পাঁচ বছর মেয়াদী মাল্টিপল এন্ট্রি ট্যুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল দেশের পর্যটক এবং দর্শনার্থীরা স্ব-স্পনসরশিপে সংযুক্ত আরব আমিরাত যতবার ইচ্ছা যাওয়া-আসা করতে পারবেন। প্রতিবার তারা একটানা ৯০ দিন আমিরাতে থাকতে পারবেন, প্রয়োজনে আরও ৯০ দিন বাড়িয়ে দিতে পারবেন।

আমিরাত প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানান, মাল্টিপল টুরিস্ট ভিসা কার্যকর হলে ব্যবসায়ীরা জরুরী ব্যবসায়িক প্রয়োজনে স্বল্প নোটিশে আমিরাতে আসতে চলে আসতে পারবেন। অন্যদিকে এই ভিসা দেশটির প্রবাসী পরিবারের সদস্যদের প্রিয়জনদের কাছে নিয়মিত আসার ব্যাপারে উৎসাহিত করবে এবং সহজ হবে। এছাড়া এতে টুরিস্ট ভিসার ব্যয়ও কমে আসবে।

অন্যদিকে দূর থেকে কাজের সুযোগ দেওয়া রিমোট ওয়ার্ক ভিসার আওতায় বিদেশি কর্মীরা স্ব-স্পনসরশিপের আওতায় সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবেশ করতে এবং ভিসার সাথে জারি হওয়া শর্তাবলী মেনে কাজ করতে পারবেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত বিশ্বের প্রথম দেশগুলির মধ্যে অন্যতম একটি, যারা করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও কাজ এবং অবসর জন্য নিরাপদ ভ্রমণ গন্তব্য প্রতিশ্রুতি দিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যটক এবং অভিবাসী কর্মীদের জন্য দেশে প্রবেশের দরজা খুলে দিয়েছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন