আবেদনের মাধ্যমে কাতারে ফিরতে পারবেন প্রবাসীরা

0

আগস্টের প্রথমদিকে স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ দেশের থেকে আটকেপড়া নাগরিক ও প্রবাসী বাসিন্দাদের কাতারে ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হবে। প্রয়োজন ও মানবিক বিবেচনায় আবেদন জমা দেওয়ার মাধ্যমে প্রবেশের অনুমতি পাবেন প্রবাসীরা।

স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে এবং সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করবে। এই তালিকা প্রতি দুই সপ্তাহে পর্যালোচনা করা হবে।

কাতারের দৈনিক পত্রিকা দি পেনিনসুলার অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস (COVID-19) মহামারি প্রতিরোধে কাতারে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার ক্রমশ শিথিলের অংশ হিসাবে এবং এর আগে ঘোষিত কাতারের ভ্রমণ নীতিের ভিত্তিতে, শনিবার ১ আগস্ট কার্যকর হওয়া ভ্রমণ নীতিমালা পর্যালোচনা করা হয়েছে।

প্রথম – কোয়ারেন্টিন নীতি পর্যালোচনা করা হয়েছে এবং নিচের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে:
স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলি থেকে কাতারে ফেরত আসাদের বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পরে একটি করোনভাইরাস পরীক্ষা দিতে হবে এবং এক সপ্তাহের জন্য বাড়িতে কোয়ারেন্টিন মেনে চলার একটি আনুষ্ঠানিক প্রতিশ্রুতি স্বাক্ষর করতে হবে। ওই রকম কিছ না এহতেরাজ অ্যাপ্লিকেশনটিতে ভ্রমণকারীদের অবস্থান হলুদ হবে, যার অর্থ তাদের কোয়ারেন্টিন প্রয়োজন।

সপ্তাহটি কেটে যাওয়ার পরে, ভ্রমণকারীকে আরও একটি করোনভাইরাস পরীক্ষা করতে নির্ধারিত স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলির একটিতে যেতে হবে। ফলাফলযদি পজিটিভ হয় তবে ভ্রমণকারীকে বিচ্ছিন্নতায় স্থানান্তরিত করা হবে এবং এটি যদি নেগটিভ হয় তবে কোয়ারেন্টিন সময়টি সেই সপ্তাহের শেষে শেষ হবে এবং এহতেরাজ অ্যাপ্লিকেশনটিতে ভ্রমণকারীর অবস্থান সবুজ হয়ে যাবে।

যদি স্বল্প -ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলিতে কোনও অনুমোদিত COVID-19 টেস্টিং সেন্টার থাকে তবে এই কেন্দ্রগুলির মধ্যে একটির কাছ থেকে পরীক্ষা করে করোনামুক্তির সনদ নিয়ে আসলে ভ্রমণকারীরা বিমানবন্দরে পরীক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রে ছাড় পাবে, তবে শর্ত থাকে যে সনদের তারিখ ভ্রমণের ৪৮ ঘন্টা আগে অতিক্রম যেন না করে।

যেসব দেশ স্বল্প-ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত নেই এবং যেখানে কাতার কর্তৃক কভিড -১৯ টেস্টিং সেন্টার অনুমোদিত হয়েছে সেখান থেকে আগতদের ভ্রমণের ৪৮ ঘণ্টার বেশি আগে ভাইরাস-মুক্ত সনদপত্র গ্রহণ করতে হবে। দোহায় পৌঁছানোর পরে আগতদের অবশ্যই এক সপ্তাহের জন্য হোম কোয়ারেন্টিন মেনে চলতে হবে এবং নিচে দেওয়া স্বল্প-ঝুঁকিপূর্ণ দেশ থেকে আগতদের ক্ষেত্রে প্রয়োগ নীতি ও শর্তাদি অনুসরণ করতে হবে।

অন্যান্য দেশের আগমনকারীরা যারা স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত নেই এবং দেশগুলোতে কোনও অনুমোদিত COVID-19 পরীক্ষা কেন্দ্র নেই তাদের কাতারে ঢোকার পর এক সপ্তাহের জন্য নিজস্ব ব্যয়ে একটি হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে, তবে শর্ত থাকে কাতার আসার আগে আসার আগে “ডিসকভার কাতার” ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হোটেলে থাকার ব্যবস্থা বুকিং দিতে হবে। সপ্তাহটি অতিক্রান্ত হওয়ার পরে, কোয়ারেন্টিন সময়সীমা সম্প্ন্ন আরেকটি COVID-19 পরীক্ষার ফলাফলের উপর নির্ভর করবে।

যদি ফলাফলটি পজিটিভ হয় তবে ভ্রমণকারীকে কোয়ারেন্টিনে স্থানান্তরিত করা হবে এবং এটি যদি নেতিবাচক হয় তবে ব্যক্তিটিকে আরও এক সপ্তাহের জন্য হোম কোয়ারান্টিনেথাকতে হবে, এক্ষেত্রে এহতেরাজ অ্যাপ্লিকেশনটির অবস্থা হলুদ হবে এবং পরে সবুজ হয়ে যাবে সপ্তাহ কেটে গেলে।

দ্বিতীয় – কাতারি নাগরিক এবং তাদের স্ত্রী, সন্তান এবং স্থায়ীভাবে বসবাসের অধিকারীরা:
উপরের সকল পদ্ধতিতে এবং আগত দেশগুলির অনুসারে তারা দেশের বাইরে ভ্রমণ করতে এবং যে কোনও সময় ফিরে আসতে পারেন।

তৃতীয় – বাসিন্দা:
আগস্টের প্রথম দিকে প্রবাসী বাসিন্দাদের কাতারে ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হবে। জনস্বাস্থ্য সূচক, বিভিন্ন সরকারী ও আধা-সরকারী খাতের প্রয়োজনীয়তার প্রকৃতিসহ একাধিক অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাসিন্দাদের প্রবেশের ব্যবস্থা করা হবে। মানবিক মামলা ও উপরে বর্ণিত অগ্রাধিকারগুলির উপর ভিত্তি করে “কাতার পোর্টাল” ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনুমতির জন্য ফিরে আসার আবেদন জমা দেওয়ার মাধ্যমে প্রবেশাধিকার পাবেনপ্রবাসীরা।

প্রবেশের অনুমতি পাওয়ার পরে বেসরকারি খাতের ‘ব্লু কালার’ শ্রমিক এবং গৃহকর্মীদের সকল সুবিধাসহ কোয়ারেন্টিন নামমাত্র মূল্যে বহন করবেন তাদের স্পন্সর বা নিয়োগকর্তা।

কেমন আছেন কাতারপ্রবাসী বাংলাদেশিরা

কেমন আছেন কাতারপ্রবাসী বাংলাদেশিরাবীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক চৌধুরী, উপদেষ্টা – বাংলাদেশ কমিউনিটি, কাতারমোহাম্মদ মোসলেম উদ্দিন , বিজনেস ম্যানেজার, আল-জামান এক্সচেঞ্জ, আমিন রসুল (সাইফুল), সেক্রেটারি-জেনারেল – বাংলাদেশ কমিউনিটি কাতার সমন্বয় ও সহযোগিতা : নুর মোহাম্মদ, লেখক ও সাংবাদিকসঞ্চালনায় : আহমেদ তোফায়েল, সাংবাদিক ও উপস্থাপক

Posted by AkashJatra on Monday, July 20, 2020

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...