আটকেপড়া প্রবাসীদের জন্য আবুধাবিতে আরও ২ বিশেষ ফ্লাইট

0

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে আরও দুটি বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হয়েছে । বাংলাদেশ বিমানবাহিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের তত্ত্বাবধানে আগামী ২৯ ও ৩০ জুন দু’টি চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এ তথ্য দিয়ে বলা হয়েছে, একমুখী যাত্রায় টিকিটের মূল্য নির্দারণ করা হয়েছে ঢাকা-আবুধাবি ইকোনমি ক্লাস: ৪৫ হাজার টাকা (৩০ কেজি চেক ইন ও ৭ কেজি কেবিন ব্যাগেজ), আবুধাবি-ঢাকা ইকোনমি ক্লাস ৩৯ হাজার টাকা (৩০ কেজি চেক ইন ও ৭ কেজি কেবিন ব্যাগেজ) ।

আগ্রহী প্রবাসী যাত্রীদের https://baf.shataj.com/ticket এই লিংকের মাধ্যমে নিবন্ধন করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে, প্রয়োজনীয় তথ্যাদি পূরণ করার পর “Book Now” বাটনটিতে ক্লিক করলে একটি বুকিং নম্বর (Booking Number) পাওয়া যাবে। বুকিং নম্বরটি সংরক্ষণ/লিপিবদ্ধ করে পরবর্তীতে পেমেন্ট করার সময় রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। এরপর, “Pay Now” বাটনটিতে ক্লিক করে বুকিং নম্বর (Booking Number) এবং যাত্রীর জন্ম তারিখ (Date of Birth) দিয়ে “Find” বাটনটিতে ক্লিক করলে যাত্রীর সমস্ত তথ্য প্রদর্শিত হবে। সঠিক তথ্য নিশ্চিত করে পেমেন্ট করা যাবে। আসন সংখ্যা সীমিত থাকার কারণে আগের বুকিং নম্বরধারীকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

দেশ আটকেপড়া প্রবাসীদের আমিরাতে ফিরে আসতে এই দেশের সরকারের অনুমতি লাগবে। এই জন্য ঢাকা-আবুধাবি বিশেষ প্লাইটের যাত্রীদের জন্য আবুধাবি ও অন্য রাজ্যে শহরের জন্য https://smartservices.ica.gov.ae এই লিংকে ক্লিক করে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ফিরে যাবার অনুমতির আবেদন করতে হবে। আবেদন গ্রহন হলে ই-মেইলে কভিড-১৯ টেস্ট করানোর জন্য নির্বাচিত মেডিক্যাল সেন্টারের তালিকা আসবে, যেখান থেকে যাত্রীদের নিজস্ব সুবিধা মোতাবেক সেন্টার থেকে টেস্ট করাতে হবে।

করোনা টেস্ট নেগেটিভ ফলাফলের চার দিনের মধ্যে আরব আমিরাতে প্রবেশ করতে হবে। চার দিনের আগের ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না। সংযুক্ত আরব আমিরাতে আগমণের পর নিজ খরচে আবার কভিড-১৯ টেস্ট করতে হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ১৪ দিন নিজ খরচে হোম/হোটেল/প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে। সকল যাত্রীদের নিজ নিজ মোবাইল ফোনে Al-Hosn App ডাউনলোড করতে হবে।

শুধুমাত্র চুড়ান্ত গন্তব্য দুবাইয়ের জন্য https://smart.gdrfad.gov.ae। এই লিংকে ক্লিক করে ইউএই-তে ফিরে যাবার অনুমতির আবেদন করতে হবে। শর্ত পূরণ হলে তাৎক্ষণিকভাবে অনুমতি পাওয়া যাবে। এ ক্ষেত্রে কভিড-১৯ টেস্ট করার কোন প্রয়োজনীয়তা নেই। দুবাই আগমনের পর নিজ খরচে কভিড-১৯ টেস্ট করতে হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ১৪ দিন নিজ খরচে হোম/ হোটেল/ প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে যেকোনো প্রয়োজনীয় তথ্যের জন্য ঢাকাস্থ ইউএই দূতাবাসের ফোন : 02-9882244 এবং 02-9882277। ই-মেইল dhakaemb@mofaic@gov.ae-এ যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

আবুধাবিকে ট্রানজিট হিসেবে গ্রহণ করে ঢাকা থেকে যাত্রীগণ অন্য যে কোনো দেশের উদ্দেশ্যেও ভ্রমণ করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে https://www.iatatravelcentre.com এই লিংকে ক্লিক করে নিজ নিজ প্রয়োজনীয়তা যাচাই করে নিতে হবে।।

সকল যাত্রী তাদের নিজস্ব ভ্রমণ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা স্ব স্ব দুতাবাস/মন্ত্রণালয়/ ইমিগ্রেশন ইত্যাদি হতে (যদি থাকে) নিজ দায়িত্বে ফ্লাইটের নু্ন্যতম ২৪ ঘণ্টা আগে সম্পন্ন করবেন।

আবুধাবি-ঢাকার সকল যাত্রীদের নিজ দায়িত্বে করোনা টেস্ট করে নিতে হবে। নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকলে বাংলাদেশে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে না।

যাত্রার ছয় ঘণ্টা আগে দু’জোড়া ডিসপোসিবল গ্লাভস ও মাস্কসহ বিমানবন্দরে উপস্থিত হতে হবে। অতিরিক্ত মুল্য পরিশোধ করেও বিমানবন্দরে অতিরিক্ত ব্যাগেজ বহন-এর কোনো ব্যবস্থা না থাকায় প্রদত্ত ব্যাগেজের অতিরিক্ত মালামাল কোনো অবস্থাতেই বহন করা যাবে না।

বিস্তারিত জানার জন্য বাংলাদেশ বিমান বাহিনী কল্যাণ ট্রাস্ট ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট ছাড়াও ইমেল reservation@baf.mil.bd, টেলিফোন +8802-55060000 ও এক্সটেনশনে 3395 যোগাযোগ করা যাবে।

বাংলাদেশের জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার ইপিএস খাত কোন পথে

বাংলাদেশের জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার ইপিএস খাত কোন পথেশেখ মুরাদ হোসেন (শিন মিন হো), অভিবাসন বিশেষজ্ঞ, দক্ষিণ কোরিয়াররবিউল ইসলাম, দক্ষিণ কোরিয়া প্রবাসী২৮ জুন, রোববার – দক্ষিণ কোরিয়া সন্ধ্যা ৬.৩০, বাংলাদেশ বিকেল : ৩.৩০

Posted by AkashJatra on Sunday, June 28, 2020

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Loading...